নাটোরে বিনা চিকিৎসায় মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর অভিযোগ

|

স্টাফ রিপোর্টার, নাটোর:

নাটোরে শ্বাসকষ্ট থাকায় করোনা সন্দেহে ভর্তি নেয়নি কোনো হাসপাতাল। বেশ কয়েকটি হাসপাতাল ঘুরে অবশেষে চিকিৎসা না পেয়ে এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

আর কত প্রাণ বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে এমন প্রশ্ন সচেতন মহলের। এদিকে জেলা প্রশাসন বিষয়টি তদন্তে গঠন করেছে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ স্থানীয় সংসদ সদস্যও।

জানা যায়, নাটোর সদর উপজেলার আঘদিঘা কাটাখালি গ্রামের ষাটোর্ধ মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস আলী গাজি। বেশ কয়েকদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। রোববার সকালে তার বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট শুরু হলে পরিবারের লোকজন প্রথমে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তির জন্য নিয়ে আসে।

পরে শহরের সততা ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মুক্তিযোদ্ধাকে সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। পরে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে করোনা সন্দেহে তাকে সেখানে ভর্তি করাতে অনীহা প্রকাশ করেন দায়িত্বরতরা। পরে বিনা চিকিৎসায় প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যান ওই মুক্তিযোদ্ধা।

সততা ক্লিনিক মালিক আব্দুল আওয়াল রাজা জানান, রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

জেলা সিভিল সার্জন কাজী মিজানুর রহমান জানান, কেনো রোগী ভর্তি করা হলো না। বা সে সময় কারা দায়িত্বে ছিল তা বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নাটোরের এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন সচেতন মহল। দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার আশ্বাস দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল।

জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ জানান, বিনা চিকিৎসায় একজন মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ইউএইস/









Leave a reply