ইন্টারকে কাঁদিয়ে শ্রেষ্ঠত্বের মসনদ দখল করলো সেভিয়া

|

আবারও ইউরোপা লিগের শ্রেষ্ঠত্বের মসনদ দখল করলো স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়া। রাতে জার্মানির কোলনে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ইন্টার মিলানকে ৩-২ গোলে হারিয়ে নিজেদের ষষ্ঠ শিরোপা ঘরে তুলেছে টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সফলতম ক্লাবটি। গ্রান্ড ফিনালেতে সেভিয়ার হয়ে দুটি গোল করেছেন ডাচ স্টাইকার লুক ডি ইয়ং।

ইউরোপের দ্বিতীয় সেরা ক্লাব প্রতিযোগিতার শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে মুখোমুখি হয় টুর্নামেন্টের সফলতম দুই ক্লাব। নামের মতই ম্যাচের শুরু থেকে ছিলো উন্মাদনা। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই নিজেদের ডি বক্সে ইন্টার স্টাইকার লুকাকুকে ফাউল করেন সেভিয়া ডিফেন্ডার ডিয়েগো কার্লোস। সুযোগ কাজে লাগিয়ে ইতালির ক্লাবটিকে লিড এনে দেন বেলজিয়ামের গোলমেশিন লুকাকু।

সমতায় ফিরতে সময় নেয়নি সেভিয়া। ১২ মিনিটে হেসুস নেভাসের ক্রস থেকে পাওয়ারফুল হেডারে দলকে সমতায় ফেরান ডাচ স্টাইকার লুক ডি ইয়ং। ৩৩ মিনিটে লিড নেয় স্প্যানিশ ক্লাবটি। এভার বেনেগার সেট পিস থেকে দুর্দান্ত হেডে আবারও স্কোর শিটে নাম তোলেন ডি ইয়ং।

অবশ্য সেভিয়ার এই আনন্দ স্থায়ী হয় মাত্র তিন মিনিট। এবার ব্রোজিভিচের নেয়া ফ্রিকিক থেকে হেডে গোল করে ইন্টারকে সমতায় ফেরান উরুগুয়ের ডিফেন্ডার ডিয়েগো গর্ডিন।

এরপর এগিয়ে যাওয়ার অসম লড়াই শুরু করে দুই দল। আক্রমণের প্রচেষ্টা রুখতে শারীরিক ফুটবলের মহড়া দেখায় ইন্টার ও সেভিয়া। ৭৪ মিনিটে বড় ভুল করে ফেলেন ইন্টারের রুমেলো লুকাকু। সেভিয়া ডিফেন্ডার ডিয়েগো কার্লোসের ওভারহেড কিক রুখতে গিয়ে আত্মঘাতি গোল করে বসেন এই স্ট্রাইকার। ম্যাচের বাকি সময় আর কোন গোল না হওয়ায় ৩-২ গোলের জয়ে ষষ্ঠ ইউরোপা লিগ ট্রফি হতে ওঠে সেভিয়ার।

এদিকে ভিন্ন চিত্র ইন্টার শিবিরে। হারের বেদনায় নীল হয়ে কোচ কন্তের পদত্যাগের গুঞ্চনও উঠেছে। তবে কোচ অ্যান্তনিও কন্তে জানিয়ে দিয়েছেন, এটি তার ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনা করার সঠিক সময় নয়। তিনি বলেন, হয়তো গনমাধ্যমের জন্য এটি খুব ভালো খবর। বিষয়টি নিয়ে আমি সবার আগে ফুটবলারদের সাথে কথা বলব, যাদের পারফরম্যান্স গার্বিত করেছে আমাকে।









Leave a reply