ছেলেটি নেচেছিল, তাই পুলিশ ধরেছে

|

পারফরমিং আর্ট’-এর অন্যতম প্রধান শাখা ধরা হয় নাচকে। অথচ নাচার কারণেই কিনা ১৪ বছরের এক কিশোরকে জেলে পুরেছে পুলিশ! ঘটনাটি ঘটেছে সৌদি আরবে। আটক কিশোরের নাম তাৎক্ষণিকভাবে প্রকাশ করেনি সৌদি পুলিশ।

জেদ্দায় রাস্তায় হঠাৎই বিখ্যাত ‘মাকারিনা’ নাচ শুরু করে বালকটি। সেই নাচের ভিডিওচিত্র ধারণ করে ছেড়ে দেয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবং নিমেশেষ তা ভাইরাল হয়ে পড়ে। ভিডিওচিত্র দেখে পুলিশ ছেলেটিকে খুঁজে বের করে। যথাযথ ‘পাবলিক বিহেভিয়ার’ করতে ব্যর্থ হওয়ার অপরাধে তাকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার জন্য রাষ্ট্রীয় কৌঁসুলীকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

অবশ্য এক্ষেত্রে কিছুটা মুশকিলেই পড়তে হতে পারে সরকারকে। দেশটিতে ‘অপ্রাপ্তবয়স্ক’ অপরাধীদের বিচারের ক্ষেত্রে কোনো সুস্পষ্ট বিধান নেই। কিশোর অপরাধীদের লঘুপাপে গুরুদণ্ড দেয়ার কারণে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলো অাগে থেকেই সৌদি সরকারের সমালোচনা করে আসছে।

সৌদি আরবের আহমেদ আল ওমরান নামের এক সাংবাদিক ছেলেটিক ‘হিরো’ উল্লেখ করে বলেছে, আমাদের এমন হিরোই দরকার। অবশ্য অনেকেই ছেলেটির ‘মানসিক পরিপক্কতা’ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে।

উল্লেখ্য, সৌদি আরবে নাচ, গান নিয়ে সামাজিক বিধিনিষেধ আছে। সম্প্রতি মঞ্চে গান গাওয়ার অপরাধে এক সংগীত শিল্পীকে আটক করে দেশটির পুলিশ। পরে অবশ্য ওই গায়িকাকে ছেড়ে দেয় তারা।

(আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের তথ্য অবলম্বনে তোয়াহা ফারুক)
যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply