সাহিত্যের নোবেলে কি এবারও বিতর্ক নাকি জনতুষ্টি?

|

সাহিত্যে এ বছরের নোবেল পুরস্কার ঘোষণা করা হবে বৃহস্পতিবার। ২০১৬ সালে রীতিভঙ্গ করে মার্কিন গায়ক বব ডিলানকে সাহিত্যে নোবলে পুরস্কার দেয়ার পর থেকে বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ সাহিত্য পুরস্কারটি নিয়ে বিতর্ক দেখা দেয়।

ওই বিতর্ক মুছে যাওয়ার আগেই পরের বছরই নোবেল সাহিত্য পুরস্কার কমিটির কয়েকজন সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও নারী নিপীড়নের অভিযোগ ওঠে।

একে কেন্দ্র করে ২০১৭ সালে নোবেল সাহিত্য কমিটির সদস্যরা বিভক্ত হয়ে পড়েন। এরই জের ধরে ২০১৮ সালে সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার স্থগিত করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। ৭০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো ঘটে ওই ঘটনা। গার্ডিয়ান, এএফপি।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে বিতর্কমুক্ত নোবেল সাহিত্য পুরস্কার নিশ্চিত করার জন্য নোবেল সাহিত্য একাডেমিকে পুনর্গঠন করা হয়। নোবেল ফাউন্ডেশন থেকে নোবেল সাহিত্য কমিটিতে পাঁচজন বহিঃসদস্য যুক্ত করার নির্দেশনা দেয়া হয়। এদের কাজ ছিল যোগ্য ও খ্যাতিমান ব্যক্তিদের সাহিত্যে নোবেল পাওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তা করা।

কিন্তু ২০১৯ সালেও বিতর্কমুক্ত হতে পারেনি সাহিত্যের নোবেল। পাঁচজন বহিঃসদস্যের দু’জন অভিযোগ করেন, তাদের মতামত আমলে নেয়া হয়নি বিজয়ী বেছে নেয়ার ক্ষেত্রে। ফলে ২০১৯ সালের নোবেল সাহিত্য পুরস্কার ঘোষণা করার পর তারা পদত্যাগ করেন। কিন্তু ১৮ সদস্যের নোবেল সাহিত্য একাডেমি তাদের যুক্তিতে অটুট থাকে। বলকান যুদ্ধের সমর্থক অস্ট্রেলিয়ার ঔপন্যাসিক পিটার হ্যান্ডকে-কেই পুরস্কার দেয়া হয়।

টানা চার বছর নানা বিতর্কের পর এবার কে পেতে যাচ্ছেন সাহিত্যের নোবেল, তা নিয়ে ঔৎসুক্য-আগ্রহ অনেক। বিশেষজ্ঞরাও এবারের বিজয়ী বাছাই করার ক্ষেত্রে সতর্ক। আশা করা হচ্ছে, জ্যামাইকা কিনাসিড ও অ্যানে কারসন পেতে পারেন এবারের সাহিত্যের নোবেল।

সুইডেনের খ্যাতিমান সম্পাদক বিজর্ন ইউমান বলেন, বিতর্ক এড়াতে চাইলে এ বছরের সাহিত্যের নোবেল দেয়া উচিত জ্যামাইকা কিনাসিডকে। কারণ বিভিন্ন নৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তার লেখা বর্তমান সময়ের উপযোগী। এছাড়া আলফ্রেড নোবেল নিজের উইলে যেমন ব্যক্তিকে পুরস্কার দেয়ার জন্য বলেছেন, কিনাসিড তেমনই একজন।

এছাড়া কানাডিয়ান কবি অ্যানি কারসন, হাঙ্গেরির লেখক পিটার নাডাস, আলবেনিয়ার ইসমাইল কাদারে এবং রোমানিয়ার মিরসিয়া কারটারেসকুও পেতে পারেন এবারের সাহিত্যের নোবেল।

প্রত্যেক দেশেই নোবেল পুরস্কার জয় করার মতো সেরা লেখক রয়েছেন। তবে নোবেল কমিটি রহস্যজনক উপায়ে কাজ করে থাকেন এবং তারা সেরা লেখকদের বিস্মিত করেন- সেভান্তে উইলারের। কয়েক বছরের বিতর্ক-সমালোচনার পর এবার সমালোচনা মুক্ত ও নিরাপদ ব্যক্তিকেই বেছে নেবে কমিটি- এমন প্রত্যাশা সংশ্লিষ্টদের।









Leave a reply