করোনা মোকাবেলার ব্যর্থতা-সাফল্য নিয়ে প্রথম টিভি বিতর্কে মাইক পেন্স ও কমলা হ্যারিস

|

করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবেলার ব্যর্থতা-সাফল্যের খতিয়ান নিয়ে প্রথম টিভি বিতর্কে বাগযুদ্ধে জড়ালেন, রিপাবলিকান ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মাইক পেন্স এবং ডেমোক্র্যাট পদপ্রার্থী কমলা হ্যারিস।

নির্বাচনের ২৭ দিন আগে, ইউটাহ বিশ্ববিদ্যালয়ে হয় তর্কযুদ্ধ। যাতে, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে দুর্বল প্রেসিডেন্ট আখ্যা দেন বাইডেনের রানিংমেট। ৯০ মিনিটের বিতর্কে কমলার অভিযোগ- জেনেশুনে মহামারির তথ্য ও ভয়াবহতা ধামাচাপা দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। কিছুটা চাপে থাকা বর্তমান ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের দাবি- শুরু থেকেই স্বাস্থ্যসেবাকে সবার্ধিক গুরুত্ব দিয়েছে সরকার। এছাড়া, বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলন নিয়েও উভয়পক্ষের মধ্যে হয় লড়াই। দেড়ঘণ্টার বিতর্ক উঠে আসে- সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতি নিয়োগ, অভিবাসন, শিক্ষা-অর্থনীতি-পররাষ্ট্রনীতির মতো ইস্যুগুলো।

ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী কমলা হ্যারিস বলেন, সরকার করোনাভাইরাস সম্পর্কে শুরু থেকেই সব জানতো। অথচ, বিষয়টি পুরোপুরি ধামাচাপা দেয়া হয়েছে। বরাবর প্রেসিডেন্ট একে ধাপ্পাবাজি বলে এসেছেন, আজ তিনি নিজেই আক্রান্ত। এখনো মোহামারি মোকাবেলার সুর্নিদ্দিষ্ট কোন পরিকল্পনা নেই।অথচ, দেশের এমন সংকটময় মুহুর্তে ক্ষমতায় জো বাইডেন থাকলে, পরিস্থিতি ভিন্ন হতো।

রিপাবলিকান পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মাইক পেন্স বলেন, চলতি বছর চ্যালেঞ্জের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু, ক্ষমতার প্রথমদিন থেকেই স্বাস্থ্যসেবাকে গুরুত্ব দিয়ে আসছেন প্রেসিডেন্ট। এমনকি- অন্যান্য সব রাষ্ট্রপ্রধান যা করেননি; সেটাই করে দেখিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। করোনার বিস্তাররোধে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীনের সাথে বন্ধ করেছেন সব যোগাযোগ।









Leave a reply