ফেডারেশন কাপে মোহামেডানের আট মিনিটের ঝড়ে উড়ে গেলো মুক্তিযোদ্ধা সংসদ

|

ফেডারেশন কাপের ১০ বারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা মোহামেডান, এই মৌসুমের শুরুতেই হোঁচট খায় চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর কাছে। প্রথম ম্যাচে ৩-০ গোলে হারায় গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের প্রয়োজন ছিলো বেশ। জয় না পেলে গ্রুপ স্টেজ থেকেই বিদায় নিতে হবে সাদাকালোদের। সেই সমীকরণ নিয়েই মাঠে নেমেছিলো মুক্তিযোদ্ধার বিপক্ষে। পরিকল্পনা অনুযায়ী মাঠে তার প্রতিফলন দেখিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে। এই জয়ের ফলে শেষ আটে খেলা প্রায় নিশ্চিত মোহামেডানের।

তবে সুযোগ আছে মুক্তিযোদ্ধার সামনেও, নক আউট পর্বে খেলতে হলে পরের ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধাকে জিততেই হবে,তাও আবার বড় ব্যাবধানে। অন্যদিকে গ্রুপ স্টেজের শেষ ম্যাচে আবাহনীর সাথে ড্র করলেই নিশ্চিত হবে মোহামেডানের নক আউট পর্বে খেলা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় ফুটবল স্টেডিয়ামে, ম্যাচের শুরু থেকেই অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠে মোহামেডান। তবে ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় প্রথম গোল পেতে তাদের অপেক্ষা করতে হয় ৪২ মিনিট পর্যন্ত। প্রায় ২০ গজ দূর থেকে বাঁ পায়ে নেওয়া ফ্রি-কিক থেকে প্রতিপক্ষের গোল কিপারকে বোকা বানিয়ে সাদাকারোদের এগিয়ে নেন হাবিবুর রহমান সোহাগ।

বিরতির পরেই ছন্দে ফেরে মুক্তিযোদ্ধা। ৬৮ মিনিটে সুজন মিয়ার ক্রস থেকে উজবেক ফুটবলার খোলদারভের গোল করে সমতায় ফেরান দলকে। তবে, স্টেডিয়ামে উপস্থিত সকলেরই ধারনা ছিলো ম্যাচটি ড্র হতেই চলছে। সেই সমিকরণ পাল্টে দিয়ে শেষ ৮ মিনিটে সাদাকালোদের ঝড়েই ব্যাকফুটে চলে যায় মুক্তিযোদ্ধা।

৭৫ মিনিটে সোহাগের কর্নার কিক থেকে ডিফেন্ডার আতিকুজ্জামানের স্কোরে এগিয়ে যায় মোহামেডান। ৮০ মিনিটে নাইজেরিয়ান আবিওলা নুরাতের কল্যানে ৩-১ গোলে এগিয়ে যায় ১০ বারের চ্যাম্পিয়নরা। আর ৮৩ মিনিটে আবারও নুরাতের আঘাত ৪-১ গোলে এগিয়ে থেকেই ম্যাচ শেষ করে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ফলে ৪-১ গোলের স্বস্তির জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ঢাকার জায়ান্টরা।









Leave a reply