বাংলাদেশে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মেসেজিং অ্যাপ ‘বিপ’

|

সম্প্রতি মেসেজিং সার্ভিস ‘হোয়াটসঅ্যাপ’র ব্যক্তিগত গোপনীয়তা সংক্রান্ত নতুন নীতির কারণে প্ল্যাটফর্মটি ত্যাগ করে অন্যান্য মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করা শুরু করেছেন অনেক ব্যবহারকারী। হোয়াটসঅ্যাপের বিপরীতে জনপ্রিয়তা অর্জন করা অ্যাপগুলোর মধ্যে তালিকার প্রথমদিকেই রয়েছে মেসেজিং অ্যাপ টেলিগ্রাম, সিগন্যাল ও বিপ অ্যাপ।

এদের মধ্যে, বাংলাদেশে হোয়াটসঅ্যাপসহ সবগুলো মেসেজিং অ্যাপসকে ছাড়িয়ে গুগল প্লে ও অ্যাপলের আইওএস স্টোর থেকে ডাউনলোডের শীর্ষে রয়েছে তুরস্কভিত্তিক টেলি-কমিউনিকেশন কোম্পানি তুর্কসেল’র তৈরি মেসেজিং অ্যাপ ‘বিপ’।

এর আগে, ২০১৪ সালে ফেসবুক হোয়াটঅ্যাপ কিনে নেয়ার পর থেকেই হোয়াটসঅ্যাপের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা সংক্রান্ত নীতিমালা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ ও ব্যবহারকারীরা।

হোয়াটসঅ্যাপের প্রস্তাবিত নতুন নীতিমালা অনুযায়ী হোয়াটসঅ্যাপ তার ব্যবহারকারীদের তথ্য ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ফেসবুকের সাথে শেয়ার করতে পারবে। হোয়াটসঅ্যাপের এই নীতির ফলে ব্যবহারকারীরা মনে করছেন, তাদের তথ্য ফেসবুকের সাথে শেয়ার করা হলে ব্যক্তিগত গোপনীয়তার লঙ্ঘন হবার সুযোগ থাকে।

হোয়াটসঅ্যাপ এমন নীতিমালার কথা ঘোষণা দেয়ার পরই মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটি তার ২০ শতাংশ ব্যবহারকারী হারায়। বিপরীতে বিশ্বব্যাপী বিপুল ব্যবহারকারী পেতে শুরু করে বিপ, সিগনাল ও টেলিগ্রামের মতো মেসেজিং প্ল্যাটফর্মগুলো।

বাংলাদেশে গত এক সপ্তাহের গুগল প্লে স্টোরের অ্যাপ ডাউনলোড পরিসংখ্যান অনুযায়ী হোয়াটসঅ্যাপকে পিছনে ফেলে বর্তমানে তুরস্কভিত্তিক মেসেজিং অ্যাপ বিপ ডাউনলোডের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে।

দুটি কারণে বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে বিপ ব্যবহারের প্রবণতা বেড়ে থাকতে পারে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য প্রযুক্তি ইন্সটিটিউট এর শিক্ষক বিএম মাইনুল হোসেন বলেন, পৃথিবীতে মানুষ এখন প্রাইভেসি নিয়ে আগের চেয়ে বেশি সচেতন। বাংলাদেশেও অনেকব্যহারকারী প্রাইভেসিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেন ফলে তাদের অধিকাংশ ‘বিপ’ ডাউনলোড করে থাকতে পারেন। দ্বিতীয়ত, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসপ তাইয়েপ এরদোগান হোয়াটসঅ্যাপ ছেড়ে বিপ ব্যবহারের ঘোষণা দেয়ার ফলে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশে হিসেবে এটার একটা প্রভাব পড়তে পারে।









Leave a reply