সেঞ্চুরির বিশ্বরেকর্ড হাতছানি দিচ্ছে কোহলিকে

|

সেঞ্চুরির বিশ্বরেকর্ডের হাতছানি দিয়ে ডাকছে ভিরাট কোহলিকে। সেখানে আর কেউ নেই। এত দিন কোহলি যেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন, সেখানে তার সঙ্গী ছিল শুধু রিকি পন্টিং।

ভারতের সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে পন্টিংদের দেশের মাটিতেই পেছনে ফেলার সুযোগ পেয়েছিলেন কোহলি। কোহলি প্রথম সন্তানের মুখ দেখতে অ্যাডিলেড টেস্ট খেলেই দেশে ফিরে যান। কোহলি অস্ট্রেলিয়ায় থাকলে বাকি তিন টেস্টেও নেতৃত্ব দিতেন ভারতকে। এই তিন টেস্টে সম্ভাব্য ৬ ইনিংসে একটি সেঞ্চুরি হয়তো পেতেন তিনি। আর এটি করতে পারলেই তিনি সেঞ্চুরিতে বিশ্ব রেকর্ড গড়তে পারতেন।

যাইহোক যেটি হয়নি তা নিয়ে কথা না বাড়ানোয় ভালো। এখন সামনে তাকানোই উচিত। চেন্নাইয়ে শুক্রবার চার টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে ভারত। ঘরের মাঠে এ টেস্টে কোহলির ব্যাট চওড়া হয়ে ওঠাই স্বাভাবিক।

আর এ টেস্ট থেকে একটা সেঞ্চুরি পেলেই সেটি হয়ে যাবে অধিনায়ক হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ড। পন্টিং ও কোহলির অধিনায়ক হিসেবে সেঞ্চুরির সংখ্যা এখন সমান ৪১। কিন্তু অধিনায়ক হিসেবে ব্যাটিংয়ে নেমে দুজনের গুণমান ও কার্যকারিতা স্বাভাবিকভাবেই বৈচিত্র্যপূর্ণ ও আলাদা।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার সোনালি এক দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন পন্টিং। ২০০২ থেকে ২০১২ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ‘স্বর্ণযুগে’ নেতৃত্ব ছিল পন্টিংয়ের হাতে। অন্তত পরিসংখ্যান তাকে ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা অধিনায়কদের কাতারে রাখবে। অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটিং অর্ডারের ভিত ৩ নম্বর জায়গাটা ছিল তার। অধিনায়ক পন্টিং তিন সংস্করণ মিলিয়ে ৩২৪ ম্যাচে ৩৭৬ ইনিংসে করেছেন ৪১ সেঞ্চুরি। ৪৫.৫৪ গড়ে করেছেন ১৫ হাজার ৪৪০ রান।

আর কোহলি এখানে অনেকটা ব্যবধানে এগিয়ে। ২০১৩ থেকে ২০২০, এই ৭ বছরে ভারতের অধিনায়ক হিসেবে ১৮৮ ম্যাচ খেলেছেন কোহলি। ২১৮ ইনিংসে তার ৪১ সেঞ্চুরির পথে ব্যাটিং গড় ৬৩.১৬। অধিনায়ক কোহলি রান করেছেন ১১ হাজার ৮১১।

বলা যায়, ধারাবাহিকতায় পন্টিংয়ের তুলনায় কোহলি এগিয়ে রয়েছে। ৩২ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যান নিশ্চিতভাবেই আরও কয়েক বছর নেতৃত্ব দেবেন ভারতের। তখন এই রেকর্ড কোথায় গিয়ে থামবে, কে জানে!

ইউএইচ/









Leave a reply