যশোরে সুষ্ঠ ভোটগ্রহন নিয়ে সংশয় প্রার্থীদের,শেষ মুহুর্তে হাট-বাজার বাড়ি বাড়ি গিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা

|

যশোরে প্রতিনিধি:
আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ৫ দফায় যশোরে কেশবপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রার্থীরা এখন শেষ মুহুর্তে হাট-বাজার এবং বাড়ি বাড়ি গিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। নৌকা ও ধানের শীষের প্রার্থীরা পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করছেন, তাদের ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। মানা হচ্ছেনা নির্বাচনী আচারণ। নির্বাচন যাতে অবাধ ও সুষ্ঠু হয় সে জন্য প্রশাসন নানা পদক্ষেপ নিয়েছে।

পৌরসভার নির্বাচনকে ঘিরে কেশবপুর এখন উৎসবমূখর। ভোটগ্রহণের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে প্রচার-প্রচারণা ততই তুঙ্গে উঠছে। একইসাথে বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকন্ঠা। তবে এখন পর্যন্ত বড় ধরণের কোন সংঘাতের খবর পাওয়া না গেলেও হুমকি-ধামকি আর ছোটখাট সহিংসতার অভিযোগ উঠছে সরকার সমর্থক প্রার্থীদের বিরদ্ধে। ধানের শীষ প্রার্থীদের অভিযোগ, তাদেরকে প্রচার কাজে বাঁধা দেয়া হচ্ছে এবং কর্মীদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে।

অন্যদিকে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। তারা এসব কথা কানে না নিয়ে ভোটারদের দিচ্ছেন উন্নয়নের আশ্বাস।

এদিকে, কাউন্সিলর প্রার্থীরাও পিছিয়ে নেই। ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন পাড়া মহল্লাহতে। তবে সাধারণ ভোটাররা বলছেন, কারো হুমকি-ধামকি বা মিথ্যা আশ্বাসে নয়; সুযোগ পেলে তারা ভোট দেবেন প্রার্থীর যোগ্যতা বিবেচনা করেই।

এদিকে অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহন করার জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেছেন।প্রথমবারের মত কেশবপুরে ইভিএমএ মাধ্যমে ভোট গ্রহন অনুষ্টিত হবে। নির্বাচনে তিন জন মেয়রপ্রার্থীসহ কাউন্সিলর ও মহিলা সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছে ৫৪ জন।









Leave a reply