দীঘিনালাকে ভিক্ষুকমুক্ত করতে সেনাবাহিনীর ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ

|

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির দীঘিনালাকে ভিক্ষুকমুক্ত করে স্বনির্ভর উপজেলা গড়তে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে সেনাবাহিনী। খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের আওতাধীন দীঘিনালা জোন ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ গ্রহণ করে।

শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়ন স্লোগানে কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার সকালে উপজেলার ৩ জন ভিক্ষুককে স্থায়ীভাবে কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেয়া হয়। জোন সদরের পাশে অস্থায়ীভাবে দেয়া হয় তাদের পছন্দ অনুযায়ী বসার স্থান ও ব্যবসায়িক পণ্য সামগ্রী এবং নগদ টাকা।

সুবিধাভোগীরা হলেন, ছোটমেরুং এলাকার জালাল আহমেদ, থানাপাড়া এলাকার কুলসুম বিবি এবং একই এলাকার জয়নাব বেগম। তাদের একজনকে দেওয়া হয়েছে কসমেটিকস সামগ্রী, আরেকজনকে টি-স্টল দোকানের সামগ্রী এবং অপরজনকে সবজি দোকান। এছাড়া তাদের ব্যবসা টিকিয়ে রাখার জন্য প্রত্যেককে নগদ ১০ হাজার টাকা করে যোগান হিসেবে দেওয়া হয়েছে।

এসময় দীঘিনালা জোনের উপ অধিনায়ক মেজর মো. রেজওয়ানুজ্জামান খান, জোনাল স্টাফ অফিসার ক্যাপ্টেন সিয়াম আহমেদ ও ক্যাপ্টেন সুহৃদ শুভানন উপস্থিত ছিলেন।

সেনাবাহিনী জানায়, জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. তৌহিদুল ইসলামের পরিকল্পনায় এ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পাহাড়ে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও আত্ম-সামাজিক উন্নয়নসহ নানামুখী
সেবা সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে সেনাবাহিনী। দীঘিনালাকে ভিক্ষুকমুক্ত করে স্বনির্ভর উপজেলায় গড়ে তুলতে ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

উপকারভোগীরা জানান, একেবারে নিরুপায় হয়েই তারা ভিক্ষা করতেন। এখন জোন হতে ব্যবসার জন্য সার্বিক সহযোগিতা পেয়ে তারা অনেক খুশি এবং আর কখনও ভিক্ষা করবেননা বলেও প্রতিশ্রুতি দেন।









Leave a reply