অবহেলা নয়, ভালবাসুন পুষ্টিগুণে ভরপুর বাঙ্গিকে

|

বাঙ্গি, অনেকের কাছেই বিস্বাদ একটি ফল। একপ্রকার অবহেলিত ফলও বলা চলে। তবে জানলে অবাক হবেন যে, স্বাদে পানসে হলেও স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী বাঙ্গি। তাইতো বাঙ্গির মিষ্টি কম পুষ্টি বেশি।

আমাদের দেশে প্রায় সব এলাকায় গ্রীষ্মকালে এই ফল জন্মে। তরমুজের পর এটিই অধিক প্রচলিত শসাগোত্রীয় ফল। ধারণা করা হয়, বাঙ্গির জন্ম ইরান বা আফগানিস্তানে। আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়াও এ ফলের চাষ করা হয়।

সম্প্রতি এই বাঙ্গি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে হচ্ছে নানা ট্রল। পক্ষে বিপক্ষে গ্রুপ ও হয়েছে ফেসবুকে।

বাঙ্গি গাছ দেখতে অনেকটা শসা গাছের মতো লতানো। কাঁচা বাঙ্গি সবজি হিসেবেও রান্না করে খাওয়া যায়। একেকটি ফলের ওজন এক থেকে চার কেজি পর্যন্ত হতে পারে।

১। বাঙ্গিতে আছে আমিষ, ফ্যাটি অ্যাসিড ও খনিজ লবণ। মূত্র স্বল্পতা কিংবা ক্ষুধামন্দা দূর করতে পারে বাঙ্গি।

২। বয়স ধরে রাখে বাঙ্গি, ত্বকের বয়সের ছাপ দূর করে এ বাঙ্গি। মধুর সঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখলে মেলে উপকার।

৩। দূর করে ব্রণ, একজিমা: ব্রণ বা একজিমার সমস্যায় ভুগলে প্রতিদিন এক গ্লাস বাঙ্গির শরবত খেতে পারেন।

৪। চুল পড়া কমায়: বাঙ্গিতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘বি’। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান ‘ইন্সনিটোল’, যা আমাদের চুল নতুন করে গজাতে সাহায্য করে এবং চুল পড়া প্রতিরোধ করে থাকে।

৫। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে: বাঙ্গিতে আছে প্রচুর পরিমাণে আঁশ বাডায়াটারি ফাইবার, যা খাবার হজমে সাহায্য করে। কোষ্ঠ কাঠিন্য দূর করে।

পুষ্টিগুণে এই ফলের জুড়ি নেই। তাইতো অবহেলা নয়, ভালবাসুন বাঙ্গিকে।









Leave a reply