ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাথার খুলি ও মগজবিহীন এক শিশুর জন্ম

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালে মাথার খুলি ও মগজবিহীন এক শিশুর জন্ম হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে তানজিনা বেগম নামে এক নারী ওই শিশুর জন্ম দেন। তবে শিশুটি এখনও সুস্থ আছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, ফলিক অ্যাসিডের অভাব অথবা প্রসূতি যদি নেশাগ্রস্ত থাকেন তাহলে এমন অদ্ভুত শিশুর জন্ম হয়।

জানা যায়, জেলার নাসিরনগর উপজেলার গোয়ালনগর গ্রামের শহীদ মিয়ার মেয়ে তানজিনা বেগমের সঙ্গে একই উপজেলার ভলাকুট গ্রামের সফিল উদ্দিনের ছেলে জসিম উদ্দিনের দুই বছর আগে বিয়ে হয়। সোমবার বিকেলে প্রসববেদনা উঠলে তানজিনাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা। পরে হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক মাহফিদা আক্তার হ্যাপির তত্ত্বাবধানে নরমাল ডেলিভারি হয় তানজিনার। তিনি মাথার খুলি ও মগজবিহীন কন্যাশিশুর জন্ম দেন।

চিকিৎসক মাহফিদা আক্তার হ্যাপি জানান, শিশুটির খুলি ও মগজ ছিল না। জন্ম হওয়ার পর শিশুটির শারীরিক অবস্থা ভালো ছিল। পরে হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে রাখা হয়। ফলিক অ্যাসিডের অভাবে এমন শিশুর জন্ম হয়। মায়ের পেটে এই ধরনের শিশুদের মস্তিষ্কের পূর্ণ গঠন হয়না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের শিশু বিভাগের জুনিয়ার কনসালটেন্ট ডা. আক্তার হোসেন জানান এই ধরনের শিশুর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা কম। নিউরো সার্জনরা দেখে বলতে পারবেন কিছু করা যায় কিনা। এটি জন্মগত ত্রুটি।









Leave a reply