সুচিত্রা সরকারের ‘র‌্যাডক্লিফ লাইন পেরোনোর গল্প’

|

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় এসেছে সুচিত্রা সরকারের প্রথম বই ‘র‌্যাডক্লিফ লাইন পেরোনোর গল্প’। প্রথম দেখায় চমৎকার প্রচ্ছদের বইটি দেখে গল্পগ্রন্থ মনে হতে পারে, তবে এটি ভ্রমণকাহিনি। অঙ্কুর প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত ২২২ পৃষ্ঠার এই বইটির মূল্য ২৮০ টাকা। অবশ্য,  অমর একুশে গ্রন্থমেলায় এটি ২১০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

ভ্রমণকাহিনি নিয়ে এ ধরনের লেখার চিন্তা কীভাবে এলো এমন প্রশ্নের জবাবে সুচিত্রা জানান, আমি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউটে কাজ করি। ২০১৬ সালে অফিস থেকে  সুযোগ আসে ভারত ভ্রমণের। বাসনা ছিল কাঁটাতার পেরোবার। বাসনা মিটলো। ভিনদেশ দেখা হলো। নানা অভিজ্ঞতা জীবনের ঝুলিতে সঞ্চয়ের মতো জমা হলো। ফিরে এসেই লিখতে বসা।

আর তাই নিয়েই তৈরি হয়ে গেল আস্ত একটা বই- ‘র‌্যাডক্লিফ লাইন পেরোনোর গল্প’। ভ্রমণ উপজীব্য করে লেখা হলেও একে নিছক ভ্রমণকাহিনি বলা যাচ্ছে না। এতে যেমন দিল্লীর রাইসিনা হিলের প্রেসিডেন্ট ভবনের কথা আছে, তেমনি উঠে এসেছে একদল গ্রামবাসীকে উচ্ছেদ করে কেমন করে একটা শহর তৈরি হলো। আছে দিল্লী জাদুঘর, আগ্রার তাজমহল, মথুরা, কলকাতা আর শান্তিনিকেতনের কথা। তবে সরল চোখের দেখা এ নয়। পড়তে গিয়ে পাঠক টের পাবেন, তাজমহলের গায়ে শুধু শাহজাহানের স্মৃতিই নেই, আছে তাঁর কন্যার জাহানারার কান্না। শান্তিনিকেতনে গিয়ে লেখক যেন নতুন করে আবিষ্কার করেন রবীন্দ্রনাথকে। রবি ঠাকুরের অসহায় চোখের ভরসা হবার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ ঘটালেন বইয়ের মাধ্যমেই।

‘র‌্যাডক্লিফ লাইন পেরোনোর গল্প’র শুরু থেকে শেষ পাতা পর্যন্ত আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে দেশভাগের কান্না। সত্তর বছর পরও যে যন্ত্রণা মুছে যায়নি। নতুন আঙ্গিকে সাড়া জাগানো এই ভ্রমণকাহিনির প্রথম মুদ্রণ শেষের পথে। চাইলে পাঠক দেখে নিতে পারেন বইমেলার ২৫১-২৫৩ নম্বর স্টলে।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply