লর্ডের তাস খেলা থেকে আজকের স্যান্ডউইচ!

|

কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়া সহজেই ভ্রমণে কিংবা অফিসের লাঞ্চে অথবা স্কুলের টিফিনসহ যেকোনো সময়ের খাবারে স্যান্ডউইচের জুড়ি মেলা ভার। বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় এই খাবার চটজদলি দুই টুকরো পাউরুটির মাঝে মাংস কিংবা ডিম দিয়ে তৈরি করে ফেলা যায়।

মুখরোচক এই খাবার উদ্ভবের পেছনের রয়েছে মজার এক ইতিহাস। এমনকি এর নামটি এসেছে ইংল্যান্ডের একটি শহর স্যান্ডউইচের নামে।

আঠারো শতকের দিকে ইংল্যান্ডে স্যান্ডউইচের উদ্ভব হয়। দেশটির স্যান্ডউইচ শহরের চতুর্থ লর্ড জন মন্টেগু বন্ধুদের সাথে তাস খেলছিলেন। খেলার মাঝেই খাওয়ার সময় হলে ভৃত্য তাকে খাবারের জন্য ডাকে। কিন্তু মন্টেগু খেলায় এতোটাই মগ্ন হয়ে গিয়েছিলেন যে ভৃত্য খেলার আসরেই সহজে খাওয়া যায় এমন খাবার পরিবেশন করতে বলেন।

তখন লর্ডের রাঁধুনী বুদ্ধি করে রাতের খাবারের জন্য বানানো মাংসের টুকরো, সালাদ মিশিয়ে দুই টুকরো পাউরুটির মধ্যে ঠেসে খেলার আসরে পাঠিয়ে দেয়। খেয়ে লর্ড আর তার বন্ধুরা ভীষণ তারিফ করতে থাকেন ওই রাঁধুনীর। এভাবেই জন্ম হয় বিশ্বের অন্যতম এই জনপ্রিয় খাবারের। স্যান্ডউইচ শহরের নামানুসারে খাবারটির নাম রাখা হয় স্যান্ডউইচ।









Leave a reply