বড় জয় পেয়েছে বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ

|

বড় জয় পেয়েছে দুই জায়ান্ট বার্সেলোনা আর রিয়াল মাদ্রিদ। ঘরের মাঠে লুইস সুয়ারেজের হ্যাটট্রিকে জিরোনাকে ৬-১ গোলে হারিয়েছে বার্সা। জোড়া গোল করেছেন লিওনেল মেসিও। দিনের আরেক ম্যাচে বিবিসি ত্রয়ীর ফর্মে ফেরার রাতে রিয়াল মাদ্রিদ ৪-০ গোলের জয় পেয়েছে আলাভেসের সাথে। তবে জয় ছাপিয়ে বেল ও বেনজিমার ছন্দে ফেরাতেই সবচেয়ে খুশি রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান।

ন্যূ ক্যাম্পে ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাক থেকে জিরোনাকে লিড এনে দেন ক্রিস্টিয়ান পোরতু। ঠিক দুই মিনিট পর মেসির বাড়ানো পাসে লুইস সোয়ারেজ সমতায় ফেরান কাতালানদের।

এরপর মেসি ম্যাজিক ৩০ ও ৩৬ মিনিটে জোড়া গোল করেন এলএমটেন। ৪৪ মিনিটে সোয়ারেজ আরও এক গোল কলে ৪-১ স্কোর লাইনে শেষ হয় প্রথমার্ধ।

৬৬ মিনিটে বার্সেলোনার হয়ে স্কোর শিটে নাম লেখেন ব্রাজিলিয়ান তারকা কুটিনিয়ো। ডি বক্সের বাইরে থেকে তার পরিচিত কার্ভ শটে বার্সার জার্সিতে লা লিগায় এই কুটিনিয়োর প্রথম গোল। ৭৬ মিনিটে নিজের তৃতীয় গোল করে সোয়ারেজ হ্যাটট্রিক পূর্ন করলে ৬-১ স্কোর লাইনে শেষ হয় ম্যাচ।

আরেক ম্যাচে সন্টিয়াগো বার্নাবুতে চার ম্যাচ পর আবারো বিবিসি অর্থাৎ বেল বেনজিমা ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ত্রয়িকে নিয়ে একাদশ গড়েন রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিদান। এই ম্যাচে লম্বা সময় পর সেরা ছন্দে ফেরার ঝলক ছিল বেল ও বেনজিমার। তবে প্রথম গোল পেতে অপেক্ষা ৪৪ মিনিট পর্যন্ত। কারিম বেনজিমার বুদ্ধিদিপ্ত ব্যাক হিলের পর মৌসুমে লা লিগায় নিজেরে ১৩তম গোল করেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে গোল খরা কাটে গ্যারেথ বেলের। আর ৬১ মিনিটে রোনালদোর ২য় গোল করলে আরও ব্যবধান তিনগুন করে গ্যালাকটিকোরা। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে পেনাল্টি পায় রিয়াল। কিন্তু হ্যাটট্রিরে দারপ্রান্তে থাকা রোনালদো গোল করার সুযোগ দেন অফফর্মে থাকা বেনজিমাকে। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে রিয়লের ৪-০র জয় নিশ্চিত করে এই ফ্রেঞ্চ। তবে ম্যাচ শেষে জয়ের চেয়ে বেল বেনজিমার ফর্ম আর দলিয় সংহতিটাই বড় প্রাপ্তি বলছে রিয়াল কোচ জিদান।









Leave a reply