সিনেমা ব্যবসার লাইন্সেস চালু করছে সৌদি আরব

|

কট্টর ওয়াহাবি মতবাদ ভিত্তিক শরীয়া আইনে পরিচালিত রাজতান্ত্রিক দেশ সৌদি আরব সিনেমা ব্যবসার লাইসেন্স দিতে যাচ্ছে। এ বিষয়ক যাবতীয় নিয়ম-কানুন ইতিমধ্যে তৈরি করা হয়েছে।

দেশটির সংস্কৃতি এবং তথ্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আরব নিউজ এ কথা জানিয়েছে।

মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, সৌদি আরবে সিনেমা প্রদর্শনের লাইসেন্স প্রদানের নিয়ম-কানুনগুলো চূড়ান্ত করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই লাইসেন্স দেওয়া শুরু হবে।

তিন কোটি লোক অধ্যুষিত সৌদি আরবের অধিকাংশের বয়স ২৫ বছরের নিচে। মধ্যপ্রাচ্যে সিনেমা ব্যবসা পরিচালনাকারী শীর্ষ কোম্পানি ভক্স বিশাল এই নতুন বাজার ধরতে ইতিমধ্যে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে।

স্থানীয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মিরকত ও তেলফাজ-এর সাথে যৌথভাবে দেশটির রাজধানী রিয়াদে গত বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিনব্যাপী সিনেমা প্রদর্শন শুরু করেছে ভক্স।

শুধু ভক্স নয়, একেবারে নতুন এই ব্যবসার মাঠে ইতিমধ্যে প্রবেশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সিনেমা শিল্পে বৃহৎ প্রতিষ্ঠান এএমসি এন্টারটেইনমেন্ট। সৌদি জুড়ে ব্যবসা পরিচালনায় এএমসি দেশটির সরকারি বিনিয়োগ তহবিলের সঙ্গে গত ডিসেম্বরে সমঝোতা চুক্তিতে সই করেছে।

তবে সিনেমা ব্যবসার মাঠ দখলে এ অঞ্চলের বড় কোম্পানি ভক্সের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নামতে হবে এএমসি-কে।

লাইসেন্স প্রদানের এই সিদ্ধান্ত সৌদি আরবের সামাজিক-অর্থনৈতিক সংস্কারের মাধ্যমে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ঘোষিত ‘ভিশন-২০৩০’ বাস্তবায়নে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের একটি অংশ।

২০৩০ সাল নাগাদ সৌদি জুড়ে তিন শত সিনেমা হলে দুই হাজার পর্দা স্থাপনের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে দেশটির সরকার। তারা আশা করছে, এর মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে ২৪ বিলিয়ন ডলার যোগ হবে। পাশাপাশি ৩০ হাজার লোকের স্থায়ী কর্মসংস্থান হবে ধারণা করছেন দেশটির নীতি-নির্ধারকরা।

যমুনা অনলাইন: এফএইচ









Leave a reply