মোটর নিউরনে আক্রান্ত বাবরের বাঁচার আকুতি

|

মোটর নিউরন ডিজিজ বা MND তে আক্রান্তের সংখ্যা বিশ্বজুড়ে খুব বেশি নয়। চিকিৎসকদের মতে, বাংলাদেশে আছেন সাতজন। এই ক’জনের মধ্যে একজন হলেন জহিরউদ্দিন মুহাম্মদ বাবর। বেসরকারি গ্রিন ইউনিভার্সিটির টেক্সটাইল বিভাগের ছাত্র তিনি।

দূরারোগ্য মোটর নিউরনে আক্রান্ত ব্যক্তিদের শরীরের সেলগুলো ধীরে ধীরে মরে যায়। একটা পর্যায়ে রোগীকে বিছানায় পড়ে থাকতে হয়; চলাফেরার কোনো শক্তি থাকে না। বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং এই একই রোগে আক্রান্ত।

এমএনডি’র কোন চিকিৎসা না থাকলেও প্রথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে এক ধরনের থেরাপি দিয়ে ভাল হয়ে ওঠার সুযোগ আছে। এমনটাই জানিয়েছেন বাবরের চিকিৎসকরা। স্টেম সেল নামের ওই থেরাপির ফলে শরীরের মরতে বসা সেলগুলোকে বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব।

বাবরের পরিবার এই সুযোগটি নিতে চায়। কিন্তু আর্থিক সামর্থ্য দিয়ে কুলিয়ে উঠতে পারছে না। বাবা মারা গেছেন তিন বছর আগে। সহায় সম্বলও তেমন কিছু নেই। চিকিৎসকরা বলেছেন, চীন অপেক্ষাকৃত কম খরচে প্রয়োজনীয় সময় পর্যন্ত থেরাপি নিতে ১৫ লক্ষ টাকা খরচ হবে। বাবরের পরিবারের পক্ষে এটি অসম্ভব অঙ্ক। কিন্তু দেশের সাধারণ মানুষের একটু সুনজর হলে এ পরিমাণ টাকার সংস্থান হওয়া খুবই সম্ভব।

এক সময় “School of life” নামে জীবনমুখী একটি প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানো এই তরুণ চান জীবনের লড়াইয়ে এত সহজে হাল না ছাড়তে। তিনি বাঁচতে চান। তার ভাষায়, ‘আমার এই রোগটা বিরল। আমাকে নিয়ে ডাক্তাররা গবেষণা করে যদি কোন উপকার পান তাহলে আমি তাদেরকে সেই সুযোগটা দিতে চাই।’

আপনাদের সহযোগিতার একটু এগিয়ে দিলে হয়তো বেঁচে থাকার ভরসা পাবে বাবর।

সাহায্য পাঠাতে যোগাযোগ:

শুভ্র- 01677703237

ফেরদৌস- 01939176155









Leave a reply