কিডনি বেচেও অনটন গেল না, অতঃপর দম্পতির আত্মহত্যা

|

চরম আর্থিক অনটনের জন্য কিডনি বিক্রি করতে বাধ্য হওয়ার কথা ঘরের দেয়ালে লিখে রেখে আত্মহত্যা করেছেন এক দম্পতি।

কিডনি বিক্রির টাকায় কেনা জিনিসপত্র কিভাবে বণ্টন করতে হবে তাও স্বজনদের সুইসাইড নোটে লিখে গেছেন তারা।

বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর ২৪ পরগনার নিমতার রবীন্দ্রপল্লীতে এমন ঘটনা ঘটেছে। নিহতরা হলেন আশিস মুখার্জি (৪০) ও তার স্ত্রী টুম্পা মুখার্জি । দুটি আলাদা ঘর থেকে দম্পতির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

প্রতিবেশীরা প্রথমে আশিসের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। এ কথা জানাতে তারা টুম্পাকে ফোন করার চেষ্টা করেন। কিন্তু পাশের ঘরে টুম্পারও ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান তারা। খবর পেয়ে নিমতা থানার পুলিশ দম্পতির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত করতে পাঠিয়েছে।


পুলিশ জানায়, নিহত আশিস ও টুম্পার কব্জির শিরা কাটা ছিল। এতে মনে করা হচ্ছে, কব্জি কেটে নিজেদের মৃত্যু নিশ্চিত করতে তারা গলায় দড়ি দেন।।

তাদের ঘরের দেয়ালে লাল কালিতে কিছু কথা লেখা ছিল। এর মধ্যে একটিতে তাদের মৃত্যুর জন্য নিজের মাকে দায়ী করেন আশিস। আরেকটিতে লেখা ছিল, চরম আর্থিক অনটনের জন্য তারা কিডনি বিক্রি করতে বাধ্য হন। তৃতীয় লেখাটি আশিস তার ভাইকে উদ্দেশ্য করে লেখেন। এতে কিডনি বিক্রির টাকায় কেনা ঘরের জিনিসপত্র কাকে দিতে হবে তা বলা হয়েছে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, আশিসের মা সম্প্রতি ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন। তারা বাড়ি ভাড়ার টাকায় চলতেন। এ ছাড়া আর কোনো আয় ছিল না তাদের। তাই সংসার চালাতে কয়েকজনের কাছে ধার করেন।
এক ভাড়াটে বলেছেন, সংসারে অভাব থাকলেও আশিস ও টুম্পার মধ্যে কখনও ঝগড়া হতে দেখেননি তারা।









Leave a reply