বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ শনাক্তকরণ শুরু

|

নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ শনাক্ত করার কাজ শুরু হয়েছে। আজ শনিবার সকালে নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন ইউনিভার্সিটির টিচিং হাসপাতালে এ প্রক্রিয়া শুরু হয়।

শনাক্ত করার কাজে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ত্রিভুবন ইউনিভার্সিটির ফরেনসিক বিভাগের প্রমোদ প্রমোদ শ্রেষ্ঠা। বাংলাদেশ দূতাবাস ও ইউএস-বাংলার কর্মকর্তারা প্রক্রিয়াটি তদারকি করছেন। নিহত ব্যক্তিদের আত্মীয়-স্বজনরাও সেখানে উপস্থিত আছেন।

গতকাল শুক্রবার সব লাশের ময়নাতদন্ত শেষ হওয়ার পর আজ থেকে শনাক্ত শুরু হল। তবে যেসব লাশ শনাক্ত করা সম্ভব হবে না, সেগুলোর ডিএনএ প্রোফাইলিং করা হবে। ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে শনাক্তে সিআইডির দুই সদস্য এখন নেপালে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে যে নমুনা সংগ্রহ করা হবে সেই নমুনার সঙ্গে স্বজনদের নমুনা মিলিয়ে ডিএনএ প্রোফাইলিং তৈরি করা হবে।

কাঠমান্ডুতে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দুর্ঘটনায় যেসব বাংলাদেশিকে শনাক্ত করা সম্ভব হবে, তাদের মরদেহ আগামী মঙ্গলবার আনা হবে।

গত সোমবার নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি উড়োজাহাজ অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয়। উড়োজাহাজের ৭১ আরোহীর মধ্যে ৫১ জন নিহত ও ২০ জন আহত হন। নিহতদের মধ্যে বিমানের পাইলট, কো-পাইলট ও দু’জন ক্রুসহ বাংলাদেশের ২৬ জন, নেপালের ২৪ ও চীনের ১ জন রয়েছেন। আহতদের মধ্যে বাংলাদেশি ১০ জন, নেপালের ৯ ও মালদ্বীপের ১ জন।









Leave a reply