সৌদির ওপর দিয়ে বিমান চলাচলে উচ্ছ্বসিত ইসরায়েলি মন্ত্রী

|

গত বুধবার এয়ার ইন্ডিয়ার একটি ফ্লাইট প্রথম বারের মতো দিল্লি থেকে তেলাবিব গিয়েছে সৌদি আকাশসীমার উপর দিয়ে। গত ৭০ বছর ধরে ইসরায়েলে যাওয়া বা ফেরার পথে কোনো দেশের বিমান সৌদি আকাশসীমা ব্যবহার করতে পারতো না। ইহুদীবাদী রাষ্ট্র ইসরায়েলকে অন্যান্য বেশিরভাগ মুসলিম দেশের মতো স্বীকৃতি দেয়নি সৌদি আরব।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে সৌদি পররাষ্ট্রনীতি বড় ধরনের রদবধের জেরে ইসরায়েলের সাথে ধীরে ধীরে উষ্ণতা তৈরি হচ্ছে। বিশেষ করে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকে এ গতি বেড়েছে। অভিযোগ আছে, রিয়াদ ও তেলাবিবের কর্মকর্তাদের মধ্যে মিশরে গত দুই বছরে একাধিকবার গোপনে বৈঠক হয়েছে।

যদিও প্রকাশ্যে ইসরায়েলের প্রতি নমনীয়তার সবচেয়ে বড় উদাহরণ হচ্ছে ইসরায়েলমুখী বিমানকে সৌদি আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি প্রদান। এ ঘটনায় উচ্ছ্বসিত নেতানিয়াহু সরকার।

দেশটির পর্যটন মন্ত্রী ইয়ারিক লেভিন বৃহস্পিতবার ব্রিটেনের দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকাকে বলেছেন. ‘এটি ঐতিহাসিক দিন। দুই বছরের অনেক কঠিন পরিশ্রম শেষে এই দিনটির আয়োজন করতে পেরেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেকে বলেছিলো সৌদিরা তাদের আকাশসীমা আমাদের জন্য ব্যবহার করতে দেবে না। কিন্তু এখন অনুমতি দিয়েছে। আসলে এটা একটা প্রক্রিয়া। শেষ পর্যন্ত আমাদের নিজস্ব এয়ারলাইন্সের বিমানও অনুমতি পাবে।’

লেভিন জানান, সিঙ্গাপুর ও ফিলিপাইনের দু’টি এয়ারলাইন্সের সাথেও কথা হচ্ছে। তারাও চেষ্টা করবে সৌদির ওপর দিয়ে ইসরায়েলে আসতে।

null

বুধবার রাতে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানটি দিল্লি থেকে তেলাবিবে পৌঁছার পর ‘জল কামান’ দিয়ে স্যালুট জানানো হয়। এর আগে দিল্লিতেও আয়োজন করা হয় বিশাল অনুষ্ঠানের। রাডারের তথ্য বলছে, সৌদি রাজধানী রিয়াদের মাত্র ৩৭ কিলোমিটার দূর দিয়ে বিমানটি উড়ে যায়। ৪০ হাজার ফুট উপর দিয়ে প্রায় তিন ঘণ্টা সময় সৌদির আকাশে ছিল এটি। সৌদিতে প্রবেশের আগে ওমানের আকাশসীমাও পার হয় বিমানটি। ওমান ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেয়নি এবং দেশটির আকাশসীমাও ইসরায়েলগামী বিমানের জন্য নিষিদ্ধ।









Leave a reply