এতিমের টাকা আত্মসাৎকারীর মুক্তির আন্দোলন অযৌক্তিক: প্রধানমন্ত্রী

|

ক্ষমতাকে ভোগের বস্তু মনে করেন না, জনগণের সেবা করাকেই নিজের কাজ বলে মনে করেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেন, এতিমের টাকা আত্মসাৎকারীর মুক্তির আন্দোলনের কোনো যৌক্তিকতা নেই।

ঠাঁকুরগাওয়ে বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যতদূরেই যাই, সবসময় মানুষের পাশে থাকি।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নির্বাচনে আসনে এই জনসভায় শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সারাদিন কথা বলেন। দিন-রাত মিথ্যা কথা বলতে বলতে তার গলা ব্যাথা হয়ে যায়। কিন্তু মিথ্যা বলারও একটা সীমা আছে। এত মিথ্যা বললে আল্লাহও নারাজ হয়। সে তো বিমানমন্ত্রী ছিল। কিন্তু বিমানের কী উন্নয়ন করেছিল, বলেন। আমরা ক্ষমতায় এসে দেখলাম বিমান চলে না। সব টাকা-পয়সা লুটপাট করে নেওয়া হয়েছে, বিমানকে ধ্বংস করে রেখে গেছে।

বিএনপি-জামায়াত জোটের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, মিথ্যাচার, মানুষ খুন আর দুর্নীতিই হলো বিএনপির রাজনীতি। বিএনপি দেশবাসীকে লাশ উপহার দিলেও আওয়ামী লীগ দেয় উন্নতি। নৌকার আমলেই দেশের মানুষের উন্নয়ন হয়। মাতৃভাষার স্বীকৃতি, স্বাধীনতা, উন্নয়ন সবই হয়েছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে।

এসময়, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে এতিমের টাকা আত্মসাৎকারী উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এতিমের টাকা আত্মসাৎকারীকে আদালত সাজা দিয়েছেন। তার মুক্তির দাবিতে আন্দোলন করার কোনো যৌক্তিকতা নেই।

দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আসছে জাতীয় নির্বাচনে আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট চান শেখ হাসিনা। জনসভায় ঠাকুরগাঁও থেকে আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালুর ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে, জেলা কারাগার, বিজিবি হাসপাতালসহ ৬৬টি প্রকল্পের ভিত্তিরপ্রস্তর স্থাপন ও নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply