বিউটি ধর্ষণ ও হত্যা: এসআই জাকিরের গাফিলতি প্রমাণিত

|

হবিগঞ্জের আলোচিত বিউটি ধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রথম তদন্তকারী কর্মকর্তা শায়েস্তাগঞ্জ থানায় এসআই জাকির হোসেনের গাফিলতির প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। আজ বিকেল সাড়ে ৪টায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আসম শামসুর রহমান ভূইয়া পুলিশ সুপারের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এসআই জাকিরকে গতকালই পুলিশ লাইনের সংযুক্ত করা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার বিউটি ধর্ষণ ও অপহরণ মামলা থানায় যথাসময়ে রুজু না করা, পরবর্তিতে আদালতের মাধ্যমে মামলা রুজু ও ভিকটিমের বাড়িতে থাকতে না পারাসহ হত্যা মামলায় শায়েস্তাগঞ্জ থানায় অফিসারদের দায়-দায়িত্ব খতিয়ে দেখার জন্য জন্য ৩ সদস্যের কমিটির গঠন করেন পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা। কমিটিকে ৩ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছিল।

২১ জানুয়ারি কিশোরী বিউটিকে অপহরণ করা হয়। অনেক মিনতির পর ৯ ফেব্রুয়ারি গুরুতর অবস্থায় বিউটিকে ফিরিয়ে আনা হয়। আদালতের শরণাপন্ন হলে এজাহার নথিভূক্তের নির্দেশ আসে। তারপরও শাস্তোগঞ্জ থানা পুলিশ কোন পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ বিউটির স্বজনদের। পরে লাখাইয়ে নানার বাড়ি পাঠালে, সেখান থেকেও অপহরণ করা হয় বিউটিকে। এরপর ১৭ মার্চ উদ্ধার হয় বিউটির মরদেহ।









Leave a reply