সালমানের হরিণ কেলেঙ্কারির আদ্যোপান্ত

|

১৯৯৮ সালের ১ ও ২ অক্টোবর যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিংয়ের মাঝে আলাদা আলাদা জায়গায় দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় সালমান খানের পাঁচ বছরের জেল হয়েছে। সেদিন কি ঘটেছিলো নিচে তার টাইমলাইন দেয়া হলো।

সেপ্টেম্বর, ১৯৯৮: রাজস্থানে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিংয়ের সময় সালমান খান দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করে। এসময় সাইফ আলী খান, টাবু, সোনালী সালমানের সাথে ছিলো।

২ অক্টোবর, ১৯৯৮: সালমান খানের বিরুদ্ধে হরিণ হত্যার অভিযোগ করেন গ্রাম পঞ্চায়েত।

১২ অক্টোবর, ১৯৯৮: সালমান খানকে হরিণ হত্যার দায়ে গ্রেফতার করা হয়। পরে জামিন পায়।

১০ এপ্রিল, ২০০৬: বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইনে সালমান খান দোষীসাব্যস্ত। ২৫ হাজার রুপি জরিমানাসহ পাঁচ বছরের জেল।

৩১ আগস্ট, ২০০৭: রাজস্থানের হাইকোর্টও সালমান খানকে পাঁচ বছরের জেল দেয়। এক সপ্তাহ পর সালমানের আপীরে তা স্থগিত করা হয়। আর এই এক সপ্তাহ সালমান খান জেলে থাকেন।

২৪ জুলাই, ২০১২: রাজস্থানের হাইকোর্টের আরেকটি বেঞ্চ প্রাণি হ্ত্যায় সবাইকে দোষী সাব্যস্ত করে।

৯ জুলাই, ২০১৪: সালমানের শাস্তি স্থগিত করে রাজস্থানে হাইকোর্টের দেয়া রায় চ্যালেঞ্জ করে ছিলো রাজ্য সরকার। এর প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্ট সালমান খানের বিরুদ্ধে নোটিশ জারি করে।

২৫ জুলাই, ২০১৬: রাজস্থানের হাইকোর্ট সালমান খান কে মামলা থেকে খালাস দেয়। এসময় হাইকোর্ট বলে, সালমানের লাইসেন্স করা অস্ত্র থেকে গুলি করে প্রাণি হত্যার কোন তথ্য পাওয়া যায় না। তাই তাকে এই মামলা থেকে মুক্তি দেয়া হোক।

১৯ অক্টোবর, ২০১৬: রাজস্থানের সরকার হাইকোর্টের রায়ের বিপক্ষে সুপ্রিম কোর্টে আপীল করে।

১১ নভেম্বর, ২০১৬: সুপ্রিম কোর্ট রাজস্থান সরকারের আপীল গ্রহণ করে এবং আবারও সালমান খানের বিরুদ্ধে হরিণ হত্যার দুটি মামলা চলতে পারে বলে নির্দেশ দেয়।

২৮ মার্চ, ২০১৮: কোর্টে মামলার শুনানি শেষ হয়। যেকোন দিন মামলার রায় ঘোষণা হবে জানানো হয়।

৫ এপ্রিল, ২০১৮: যোদপুর কোর্ট মামলার রায় ঘোষণা করে। রায়ে সালমান খান কে পাঁচ বছরের জেল দেয়া হয়। ১০ হাজার রুপি জরিমানা করা হয়। অন্যান্য অভিনেত্রী ও অভিনেতাদের খালাস দেয়া হয়।









Leave a reply