জাতীয় পর্যায়ের খেলোয়ার হতে চায় নাসিম

|

কামাল হোসাইন, নেত্রকোণা

জাতীয় পর্যায়ে ৪৭ তম শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বালক (মধ্যম) দলে ব্যক্তিগতভাবে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করেছে নেত্রকোণার কেন্দুয়ার শিক্ষার্থী মুহাম্মদ নাসিম। কেন্দুয়া উপজেলার মোজাফরপুর ইউনিয়নের গগডা (উত্তরপাড়া) গ্রামের ব্যবসায়ী বাবুল ইসলাম বাদলের ছেলে নাসিম।  কেন্দুয়া পৌর শহরের সায়মা শাহজাহান একাডেমির সপ্তম শ্রেণির ছাত্র তিনি। নাসিম জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী গর্বিত।

নাসিমের বাবা বাবুল ইসলাম বাদল জানান, ছোটবেলা থেকেই নাসিমের অন্তরে খেলাধূলার প্রতি বিশেষ আকর্ষণ জমে উঠে। স্থানীয়ভাবে আয়োজিত ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বরাবরই সে ১শ মিটার ও ২শ মিটার দৌড়ে প্রথম স্থান অধিকার করে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালে উপজেলা পর্যায়ে আয়োজিত ৪৭তম শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় নাসিম ১শ ও ২শ মিটার দৌড়ে এবং দীর্ঘ লাফে প্রথম স্থান অর্জন করে। তারপর তিনটি বিভাগেই জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েও বালক (মধ্যম) আঙ্গিকে সে প্রথম স্থান অর্জন করে। সর্বশেষ নাসিম চলতি বছরের ২১ ও ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে বালক (মধ্যম) আঙ্গিকে ব্যক্তিগত চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করে। নাসিম জাতীয় পর্যায়ে একজন বড় খেলোয়ার হবে এটাই এখন পরিবারের আশা বলে জানান তিনি।

নাসিম জানায়, আপনারা দোয়া করবেন। আমি জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। এখন জাতীয় পর্যায়ের একজন খেলোয়ার হতে চাই। দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনতে চাই। আর এ জন্য সরকার আমাকে সহযোগিতা করলে আমি তা পারব বলে বিশ্বাস করি।

সায়মা শাহজাহান একাডেমির প্রধান শিক্ষক মো. শহিদুল হক ভূইয়া জানান, নাসিম জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করায় আমাদের মুখ উজ্জ্বল হয়েছে। নাসিমকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হবে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকতাদিরুল আহমেদ ইতিমধ্যেই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, নাসিম ১শ ও ২শ মিটার দৌড় এবং দীর্ঘ লাফ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে উপজেলা, জেলা, উপ অঞ্চল, পদ্ম অঞ্চলসহ সর্বশেষ জাতীয় পর্যায়ে অংশ গ্রহণ করে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি লাভ করেছে। গত ২১ ও ২২ মার্চ বরিশালের আব্দুর রউফ স্টেডিয়ামে জাতীয় পর্যায়ের এ প্রতিযোগিতা শেষে ২৫ মার্চ শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ তার হাতে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি তুলে দেন।









Leave a reply