আজ চৈত্র সংক্রান্তি

|

বিদায় ১৪২৪, স্বাগত ১৪২৫।

আজ ৩০ চৈত্র ১৪২৪। বাংলা বছরের শেষদিন ও ঋতুরাজ বসন্তের বিদায়ের দিন। বাংলা বছরের শেষ দিন হওয়ায় চৈত্র মাসের শেষ দিনটিকে বলা হয় চৈত্র সংক্রান্তি। এ উপলক্ষে বাংলাদেশে প্রাচীনকাল থেকে চলে আসছে নানা অনুষ্ঠান-পূজা-পার্বণ-মেলা।

চিরায়ত অসাম্প্রদায়িক বাঙালির কাছে চৈত্র সংক্রান্তি বৃহৎ এক লোক উৎসব। হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা এ দিনটিকে একটি পুণ্যদিন হিসাবে পালন করে। তারা এইদিনে পিতৃপুরুষের তর্পণ করে থাকে, নদীতে বা দিঘিতে পুণ্যস্নান করার মাধ্যমে।

আজ সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে কালের অতল গর্ভে হারিয়ে যাবে আরো একটি বছর। আগামীকাল নানা আয়োজনের মাধ্যমে নববর্ষ ১৪২৫কে বরণ করে নেবে বাঙালিরা।

চৈত্র সংক্রান্তি বাংলার লোকসংস্কৃতির অনুষঙ্গ ও সর্বজনীন উৎসবের আমেজে বর্ণিল এক উৎসব। বছরের শেষদিনে বর্ষবিদায়ের পাশাপাশি বৈশাখ বন্দনায় মেতে ওঠে বাঙালি।

বহুকাল ধরে নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর আগে বাঙালি সংস্কৃতিতে বছরের শেষদিনটি আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানানো হয়। এ দেশে জমিদারির খাজনা আদায়ের লক্ষ্যে সম্ভবত বৈশাখী মেলার পত্তন ঘটে। অনেকের ধারণা, মূলত খাজনা আদায়কে একটি আনুষ্ঠানিক রূপ দেয়ার জন্য চৈত্রসংক্রান্তি মেলার উৎপত্তি হয়েছিল।

হিন্দু পঞ্জিকামতে, দিনটিকে মহাবিষুর সংক্রান্তি নামে গণ্য করা হয়। ব্যবসায়ী সম্প্রদায় এ দিনে বর্ষ বিদায় উৎসব পালন করে। দোকানপাট ধুয়ে-মুছে বিদায়ী বছরের সব জঞ্জাল, অশুচিতা দূর করা হয়।

যমুনা অনলাইন: আরএম









Leave a reply