রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ ও ইউএনএইচসিআর সম্মত

|

রোহিঙ্গাদেরকে প্রত্যাবাসনের ক্ষেত্রে তাদের ইচ্ছাকে প্রাধান্য দেয়া হবে বলে বাংলাদেশ ও জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর একমত হয়েছে। দুই পক্ষের মধ্যে আজ শুক্রবার জেনেভায় এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে।

সমঝোতা অনুসারে, রোহিঙ্গারা যখন নিজেদের ফিরে যাওয়াকে আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ মনে করবে তখনই শুধু তাদেরকে ফেরত পাঠানো সম্ভব হবে। বাংলাদেশের পক্ষে স্মারকে সই করেন পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক আর ইউএনএইচসিআর এর পক্ষে ছিলেন সংস্থাটির প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডি।

বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায় এবং নিরাপদে মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে সুনির্দিষ্ট কর্ম-পরিকল্পনা রয়েছে স্মারকটিতে। আন্তর্জাতিক নীতিমালার সাথে সমন্বয় রেখে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া সম্পন্নে প্রয়োজনীয় তহবিল বরাদ্দেরও আশ্বাস দিয়েছে ইউএনএইচসিআর।

এর আগে গতকাল ঢাকা সফরের সময় শিগগিরই প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে আশাবাদ জানান মিয়ানমারের সমাজকল্যাণ, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রী উইন মিয়াত আয়ে। বলেন, প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় সহযোগিতার জন্য ইউএনএইচসিআর এবং ইউএনডিপি’র সাথে আলোচনা চলছে।

গত আগস্টে রাখাইনে সেনা নিপীড়ন শুরু হলে, বাংলাদেশে পালিয়ে আসে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা।









Leave a reply