মোবাইল উদ্ধারে আশা দিয়ে ধর্ষণ করলো কবিরাজ

|

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

চুরি হওয়া মোবাইল উদ্ধার করার নামে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় এক মহিলাকে ধর্ষণ করার অভিযোগে কবিরাজকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরে কবিরাজ মানিক মিয়া (২৮) কে উপজেলার মহিষমারা এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, কয়েকদিন আগে কুলাউড়ার মহিষমারা গ্রামের এক পরিবারের সামসং গ্যালাক্সি সিরিজের একটি মোবাইল ফোন চুরি হয়। সেটি উদ্ধারের জন্য তারা কবিরাজ মানিক মিয়ার শরণাপন্ন হন। গত সোমবার রাতে কবিরাজ মানিক মিয়া ঐ মহিলার বাড়িতে আসে। প্রথমে তাবিজ লিখে তা পোড়াতে বলে। এরপর গভীর রাতে হাড়ির মধ্যে কচু পাতায় মোড়ানো তাবিজ নিয়ে মহিলাকে তিন রাস্তার মোড়ে আসতে বলে। মহিলার ছোটবোন ছাড়া কাউকে সাথে আসতে দেয়নি সে। তিন রাস্তার মোড়ে আসলে ছোট বোনকে রেখে ভিকটিমকে আড়ালে নিয়ে ভয় ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি টের পেয়ে মহিলার ছোট বোন বাসায় খবর দেয়। এর পর তার ভাই পুলিশের ৯৯৯ সার্ভিস নাম্বারে কল দিলে কুলাউড়া থানা পুলিশ মানিককে ভোরে গ্রেফতার করে।

আটক মানিক মিয়া উপজেলার রাতগাঁও ইউনিয়িনের পূর্ব ফটিককুলী গ্রামের বাসিন্দা। পেশায় সে একজন সিএনজি অটোরিক্সা চালক। সে কবিরাজির নাম করে মানুষের সাথে প্রতারণা করে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু ইউসুফ জানান, এ ঘটনায় কুলাউড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং ভিকটিমকে পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।









Leave a reply