সহনীয় মাত্রায় স্লেজিং করবে অস্ট্রেলিয়া!

|

অস্ট্রেলিয়া মানেই আক্রমণাত্মক ক্রিকেট। এর একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ স্লেজিং। ইয়ান হিলি, শেন ওয়ার্ন, গ্লেন ম্যাকগ্রাদের মতো দুর্দান্ত ক্রিকেটারের দেশ অস্ট্রেলিয়া প্রতিপক্ষের কান ঝালাপালা করে দিতে বিশেষ পারদর্শী তা কে না জানে। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে স্লেজিং যেন এক মোক্ষম অস্ত্র। এবার যেন সুপথে ফিরতে চাইছে অজিরা। অধিনায়ক টিম পেইন অন্তত তেমনটাই জানালেন।

সাম্প্রতিক বল বিকৃতি ইস্যুতে টালমাটাল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট। সেখান থেকেই ঘুরে দাঁড়িয়ে অতি আক্রমণাত্মক খেলার সংস্কৃতি থেকে বের হওয়ার কথা ভাবছে তারা। প্রথম ধাপে গুরুত্ব পাচ্ছে স্লেজিং কমানো। জুনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ। এর মধ্যেই দলের সংস্কৃতিতে পরিবর্তন আনতে চান পেইন।

অস্ট্রেলিয়া দলের খেলায় স্লেজিংয়ের উপস্থিতি কেমন থাকবে এমন প্রশ্নের উত্তরে নতুন অধিনায়ক জানিয়েছেন, না, আমার মনে হয় না। অন্তত অতটা প্রবলভাবে থাকবে না। মাঠে অবশ্যই কিছু সময় আসবে, কিছু মুহূর্ত সৃষ্টি হবে, যখন প্রতিপক্ষের সঙ্গে কথা চালাচালি হবে কিন্তু এখন থেকে কী বলা হবে এবং সেটা কীভাবে বলা হবে সেখানে অনেক পরিবর্তন আসবে।

অবশ্য যে পরিবর্তনই আসুক সেটি স্মিথের সাথে আলাপ সাপেক্ষেই সেটি করার কথা জানিয়েছেন পেইন। কারণ হিসেবে জানালেন, অস্ট্রেলীয় দলের সংস্কৃতিতে পরিবর্তন আনার কথা নাকি স্মিথের সময়ই ভাবা হচ্ছিল।

তাহলে আর কী, এখন থেকে স্লেজিং করলেও তা সহনীয় মাত্রায় করবে অজিরা।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply