যে হাটে ‘কেনা-বেচা’ হয় শ্রমিক

|

<strong>ঝিনাইদহ প্রতিনিধি</strong>

কলেজ ছাত্র রাব্বুল, ইমরান, রিপন, শাকিলসহ ৬ বন্ধু ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে কামলার হাটে বিক্রি হয়েছে ধান কাটার (কামলার) কাজ করার জন্য। গত শুক্রবার কালীগঞ্জের কামলার হাটে এভাবে ৫ শতাধিক ‘মানুষ বেচা-কেনা’ হয়েছে। মৌসুম ভিত্তিক ধান কাটার কামলা হিসেবে তারা কাজ করে। ইরি-বোরো ধান কাটার মৌসুমে সবার ধান পেকে যাওয়ায় (কাটার উপযোগী) ক্ষেত মালিক ও শ্রমিকদের (কামলা) মধ্যে কেনা-বেচার ধুম পড়ে যায়।

সরজমিনে সোমবার (৩০ এপ্রিল) কালীগঞ্জের কলেজ সড়কের মুরগি হাট এলাকায় কামলার হাটে গিয়ে দেখা যায়, শত শত মানুষের বেচা-কেনা। অসংখ্য ধান ক্ষেত মালিক তাদের কষ্টের উৎপাদিত ধান দ্রুত ঘরে তুলতে জন (কামলা) চুক্তি করে নিয়ে যেতে দেখা যায়। কেউ প্রতি দিনের চুক্তিতে, আবার কেউ বিঘা প্রতি চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছেন। স্থানীয় ভাষায় যা ‘জন’ বেচা-কেনা হিসেবে পরিচিত।

শৈলকূপা উপজেলার কানাপুকুরিয়া গ্রামের রাব্বুল, ইমরান, রিপন, শাকিল, জামির ও সবুজ ৬ বন্ধু তিন বেলা খাওয়াসহ এক বিঘা (৪৬ শতাংশ) ৩ হাজার ৬ শত টাকা চুক্তিতে বিক্রি হয়েছেন। এদের মধ্যে ৫ জন স্থানীয় কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

রাব্বুল জানায়, তারা সবাই কৃষি পরিবারের ছেলে। লেখা পড়ার পাশাপাশি পরিবারে মাঝে মধ্যে কাজ করে থাকেন। বর্তমান ধান কাটা মৌসুমে নিজেদের খরচ অল্প সময়ে অধিক আয়ের জন্য বন্ধুরা মিলে শ্রম বিক্রি করতে এসেছেন।

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার দক্ষিণ মনোহরপুর গ্রামের শরিফুল ইসলামসহ ৫ জন একই ভাবে বিঘা প্রতি ৫ হাজার ৭ শত টাকা চুক্তিতে বিক্রি হয়েছেন। শরিফুল জানান, তারা প্রতিদিন ১ হাজার টাকা জন প্রতি আয়ের লক্ষে কাজ করবেন।

রাব্বুল ও শরিফুলদের মতো শত শত শ্রমিক তাদের শ্রম বিক্রি করার জন্য দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ছুটে এসেছে কালীগঞ্জের হাটে। গত শুক্রবার ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শ্রমের এ বেচা-কেনা হতে দেখা যায়। যাদের অধিকাংশই কুষ্টিয়া, ঈশ্বরদী, পাবনা, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, মাগুরা ও ঝিনাইদহ এলাকার মানুষ বলে জানা যায়।

শালিখা উপজেলার ধনঞ্জয়পুর গ্রামের ধান ক্ষেত মালিক ঠান্ডু মিয়া বিঘা প্রতি ৫ হাজার ৭ শত টাকা চুক্তিতে ৬ জন নিয়েছেন বলে জানান। তার ১২ বিঘা জমির ধান এক যোগে পেকে যাওয়ায় এবং বৈরী আবহাওয়ার কারণে তিনি অধিক মূল্যে কামলা কিনতে বাধ্য হয়েছেন।

তিনি আরো জানান, তারা ৬ জন ক্ষেত মালিক আলম সাধু গাড়ি নিয়ে এসেছে কালীগঞ্জে কামলা কিনতে। কালীগঞ্জসহ পাশ্ববর্তী বিভিন্ন উপজেলার ক্ষেত মালিকদের একইভাবে কামলা নিয়ে যেতে দেখা যায়।









Leave a reply