পায়ে ঝি ঝি ধরলে কী করবেন

|

পায়ে ঝি ঝি ধরার অভিজ্ঞতা কমবেশি সবারই রয়েছে। হঠাৎ করে বসা থেকে দাঁড়িয়ে গেলে পায়ে অসাড়তা বোধ আসে। কোনো অনুভূতি পাওয়া যায় না। মনে হয় দেহের সেই অংশ অবশ হয়ে গেছে।

পায়ে ঝি ঝি ধরার কারণ

অনেক কারণেই পায়ে ঝি ঝি ধরতে পারে। দীর্ঘ সময় একইভাবে বিশেষ ভঙ্গিতে বসে থাকলে পায়ে ঝি ঝি বোধ হতে পারে। আমাদের নিতম্ব, উরু এবং পায়ের পেশিগুলোতে সংবেদন প্রেরণ করে সায়াটিক স্নায়ু । এসব অঙ্গের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ হয় সায়াটিক স্নায়ু দ্বারা। এই স্নায়ু নিতম্ব থেকে পা পর্যন্ত বিস্তৃত। দীর্ঘ সময় বসে থাকার কারণে অনেক সময় সায়াটিক স্নায়ুর উপর চাপ পড়ে। তখন পায়ে সংবেদন পাওয়া যায় না।

আবার দীর্ঘ সময় বসে বিশেষ ভঙ্গিতে বসে থাকলে পায়ের গোড়ালি অঞ্চলে রক্ত জমাট বেঁধে যায়। এর ফলে অক্সিজেনযুক্ত রক্ত ধমনীপথে বের হতে পারে না। ফলে ধীরে ধীরে পায়ে অক্সিজেনের অভাব অনুভূতি জাগায়। যাকে আমরা ঝি ঝি হওয়া বলে থাকি।

ডায়াবেটিস, লাম্বার স্পন্ডালাইসিস এবং পুষ্টিহীনতার কারণে মারাত্মক দুর্বলতাও এ ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।

আসুন জেনে নেই পায়ে পায়ে ঝি ঝি ধরলে কি করবেন।

মাথা এপাশ থেকে ওপাশে দুলান

অনেক সময় বেকায়দায় বসা বা শোয়ার জন্য আমাদের হাতে পায়ে ঝি ঝি ধরে যায়। সাধারণত ঘাড়ের নার্ভে চাপ পড়ার জন্য হাতে ঝি ঝি ধরে। হাতে ঝি ঝি ধরলে আপনার মাথা এপাশ থেকে ওপাশে দুলান। এত ঝি ঝি ধরলে আস্তে আস্তে কমে যাবে।

এক মিনিটে

হাতে বা পায়ে ঝি ঝি ধরলে এপাশ থেকে ওপাশে দুলান এক মিনিট সময় নিয়ে। দেখবেন এক মিনিটেরও কম সময়ে ঝি ঝি কমে যাবে।

দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ হাঁটুন

ঘাড় এদিক-ওদিক করার মাধমে ঘাড়ের মাসল শিথিল হয়। পায়ে ঝি ঝি ধরে শরীরের নিচের অংশের মাসল সংকোচনের জন্য। এক্ষেত্রে দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ হাঁটা শুরু করুন, ঝি ঝি চলে যাবে।









Leave a reply