‘জঙ্গিবাদ দমনের মতো মাদক নির্মূলেও পুলিশ সফল হবে’

|

জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশের সফলতার পর মাদক নির্মূলে দক্ষতার পরিচয় দেবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজশাহীর সারদায় ৩৫তম বিসিএস পুলিশ প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

কর্মক্ষেত্রে যোগ দিতে চলা নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষ বিপদের সময় পুলিশের কাছে সাহায্যের জন্য আসে। তাই সেবা ও মানবিক আচরণের মাধ্যমে মানুষের আস্থা অর্জনে সচেষ্ট থাকতে হবে। অপরাধ নির্মূলে পুলিশকে জনস্পৃক্ততা আরও বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, জনগণের প্রত্যাশা পূরণে পুলিশকে কাজ করতে হবে। দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে।

তিনি পুলিশবাহিনীর প্রশংসা করে বলেন, অভ্যন্তরীণ শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা বিধান, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস ও অপরাধ দমন, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখার পাশাপাশি বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বজায় রাখতে পুলিশ সদস্যরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের পুলিশ জাতিসংঘে শান্তিরক্ষা মিশনে দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের জন্য বহির্বিশ্বে প্রশংসা অর্জন করেছে।

সকালে পুলিশ একাডেমিতে নতুন এএসপিদের কুচকাওয়াজ পরিদর্শন এবং তাদের সালাম গ্রহণ করেন তিনি। কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনামূলক ভাষণে পুলিশের আধুনিকায়নে নেওয়া তার সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন।









Leave a reply