গণতন্ত্রের পক্ষে অবস্থান নেয়ায় নিপীড়িত হয়েছি: আনোয়ার

|

গণতন্ত্রের পক্ষে অবস্থান নেয়ার কারণেই নাজিব প্রশাসনের নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন মালয়েশিয়ার ক্ষমতাসীন দলের নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম। নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে কথা বলায় তার কারাদণ্ডের মেয়াদ বাড়ানো হয় বলেও অভিযোগ করেন ইব্রাহিম।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম অবজারভারকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এসব অভিযোগ করেন তিনি। এদিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের অভিযোগ, হয়রানি করতেই বাসায় তল্লাশী চালানো হয়েছে।

রাজনীতিতে সক্রিয় হয়েছিলেন সংস্কার আন্দোলনের মাধ্যমে। যার কারণে দফায় দফায় যেতে হয়েছে কারাগারে। নির্বাচনে জোটের জয়লাভের পর কারাগার থেকে মুক্তি পান আনোয়ার ইব্রাহিম। তার বহু প্রতিক্ষীত রাজনীতিক সংস্কার শুরু করবেন বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

সাক্ষাৎকারে তুলে ধরলেন নিজের ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা। এসময় সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে স্বৈরাচারি আচরণের অভিযোগ করেন আনোয়ার। বলেন, গণতন্ত্রের পক্ষে কথা বলায় তাকে নির্যাতিত হতে হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমি সব সময় গণতন্ত্র, স্বাধীনতা, উদার চিন্তার কথা বলেছি। আপনি যখনই এর পক্ষে কথা বলবেন তখনই ক্ষমতাসীনরা নির্যাতন করবে। গণতন্ত্রকে সমুন্নত রাখতে আমি কখনই নাজিব রাজাককে সমর্থন করিনি। আর সেকারণেই তিনি আমার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন।’

এদিকে নিজ বাসায় পুলিশি তল্লাশির বিরদ্ধে প্রথমবারের মতো মুখ খুললেন মালয়েশিয়ার সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। আইনজীবীর মাধ্যমে গণমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেন, তাকে হয়রানি করতে সবই সাজানো নাটক।

নাজিব রাজাকের আইনজীবী ও মুখপাত্র হারপাল সিং বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক জানিয়েছেন জব্দ হওয়া জিনিসপত্র তার নয়; তার সন্তানরাই এগুলো কিনেছিলেন।পুরো ঘটনা সাজানো হয়েছে তাকে হয়রানি করার জন্য।

এ অবস্থায় নাজিব রাজাককে আগামী সপ্তাহে তলব করেছে দেশটির দুর্নীতি বিরোধী কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে এক মঙ্গোলিয়ান মডেলকে হত্যা মামলায় নাজিবের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট।









Leave a reply