আর্জেন্টিনার দল ঘোষণা, বাদ পড়লেন ইকার্দি!

|

শেষ পর্যন্ত ফাঁস হওয়া তালিকার সাথেই মিলে গেল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ দল। সোমবার ঘোষিত দলে টিওয়াইসি স্পোর্টসের ফাঁস করা তথ্যই সঠিক প্রমাণ করলেন সাম্পাওলি। দলে জায়গা হয়নি ইন্টার মিলানের হয়ে অবিশ্বাস্য ফর্মে থাকা মাউরো ইকার্দির!

আর্জেন্টিনার ফ্যানদের আগ্রহ আসলে দু’জনকে ঘিরে— পাওলো দিবালা ও মাউরো ইকার্দি। তরুণ এই দুই স্ট্রাইকার দলে জায়গা পান কিনা এ নিয়েই ছিল যত আলোচনা। কারণ আর্জেন্টিনার দলে যে স্ট্রাইকারের অভাব নেই। দলে জায়গা পেয়েছেন প্রতিভাবান দিবালা। যদিও সম্প্রতি তার ফর্ম কিছুটা পড়তির দিকে। অন্যদিকে, সিরি-আ’তে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মাউরো ইকার্দির সুযোগ হয়নি স্কোয়াডে। ইকার্দি ইন্টার মিলানের অধিনায়কত্ব করছেন। এবারের লিগে দারুণ ধারাবাহিকতা দেখিয়ে ৩৪ ম্যাচে ২৯ গোল করেছেন। ইউরোপের সব লিগে এক মেসি ছাড়া অন্য কোনো আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের এত গোল নেই। তাও পেলেন না জায়গা! তবে সব থেকে কার্যকর স্ট্রাইকারটিকেই কী বাদ দিলেন সাম্পাওলি?

লিওনেল মেসির সাথে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে আছেন বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার হয়ে কোনো গোল না পাওয়া সার্জিও আগুয়েরো এবং বুড়ো হিগুয়েন। সাথে তো দিবালা আছেনই।

দল নিয়ে সাম্পাওলির কথা, এখানে প্রতিশ্রুতিশীল অনেক তরুণ আছে। অভিজ্ঞরা তাদের কী শিক্ষা দিচ্ছে এটা গুরুত্বপূর্ণ। আমার স্বপ্ন হলো এমন এক আর্জেন্টিনা গড়া যারা এ দলের খেলোয়াড়দের থাকা প্রতিভার সদ্ব্যবহার করতে পারে।

গত বিশ্বকাপেও সম্ভাবনা জাগিয়ে শেষ পর্যন্ত খেলা হয়নি ইকার্দির। এরপর কোপা আমেরিকার দলেও জায়গা হয়নি ইকার্দির। গুঞ্জন উঠেছিল ইকার্দিকে বাদ দেওয়ার পেছনে ছিলেন লিওনেল মেসি! ইকার্দির সাথে আরেক আর্জেন্টাইন ফুটবলার ম্যাক্সি লোপেজের সাবেক স্ত্রীর বিয়ে হয়। সংসার ভাঙার জন্য ইকার্দিকে দায়ি করেন লোপেজ। মেসি আর লোপেজের ভালো বন্ধুত্ব। দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়েই এ গুঞ্জন। অবশ্য, আর্জেন্টিনার তৎকালীন কোচ বাউজা বলেছিলেন, মাঠের বাইরের কোনো কারণে কাউকে বাদ দেয়া হয়নি। ইকার্দিকে শীঘ্রই ডাকা হবে। পরে ডাকও পেয়েছিলেন, কিন্তু হতে পারেননি নিয়মিত। অথচ, এই ইকার্দিই কিনা আর্জেন্টিনার প্রতিনিধিত্ব করবেন বলে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ইতালির হয়ে খেলার প্রস্তাব!

আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ দল:

গোলরক্ষক: সার্জিও রোমেরো, ফ্রাঙ্কো আরমানি, উইলি কাবায়েরো

ডিফেন্ডার: ক্রিস্টিয়ান আনসালদি, মার্কোস রোহো, মার্কোস আকুনা, নিকোলাস ত্যাগলিয়াফিকো, গ্যাব্রিয়েল মারকাদো, নিকোলাস ওটামেন্ডি, হাভিয়ার মাচেরানো, ফেডেরিকো ফ্যাজিও।

মিডফিল্ডার: এভার বানেগা, লুকাস বিলিয়া, এডুয়ার্ডো সালভিও, ক্রিস্টিয়ান প্যাভন, ম্যাক্সিমিলিয়ানো মেজা, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, ম্যানুয়েল লানজিনি, জিওভানি লো সেলসো।

ফরোয়ার্ড: লিওনেল মেসি, পাওলো দিবালা, সার্জিও আগুয়েরো, গঞ্জালো হিগুয়েইন।









Leave a reply