৪৫৬ বস্তা ভিজিএফের চাল ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে উদ্ধার

|

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ৪৫৬ বস্তা ভিজিএফের চাল উদ্ধার করেছে বিজিবি। বুধবার উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদসংলগ্ন ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে এসব চাল উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, পবিত্র রমজান মাস ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের আওতায় হতদরিদ্র ব্যক্তি ও পরিবারকে ভিজিএফের চাল প্রদানের জন্য কাশিপুর ইউনিয়নে ৫২৮৪টি কার্ডের বিপরীতে ৫২.৮৪০ টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়।

সে অনুযায়ী ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলজার হোসেন মণ্ডলকে ৯ জুন চাল উত্তোলন ও ১১ জুন বিতরণের নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু ৫২৮৪টি কার্ডের মধ্যে ৩৪৮৪টি কার্ডের চাল বিতরণ হলেও ১ হাজার ৪০০ কার্ডের চাল ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে উদ্ধার হওয়ায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

বিজিবি সূত্র জানায়, বুধবার উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদসংলগ্ন মৃত রহমত মাস্টারের ছেলে শাহাদৎ হোসেন মিন্টু ও চাঁন্দ মিয়ার ছেলে রমজান আলীর গুদাম থেকে বিপুল পরিমাণ ভিজিএফের চাল ট্রলিযোগে অন্যত্র সরানো হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ট্রলিতে বস্তা উঠানোর সময় ভিজিএফের ৪৫৬ বস্তা চাল জব্দ করা হয়। বিজিবির উপস্থিতি দেখে গুদাম মালিকসহ সংশ্লিষ্টরা পালিয়ে যায়।

লালমনিরহাট বিজিবি ১৫ ব্যাটালিয়নের কাশিপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার সহিদ জানান, বিজিবি বাদী হয়ে দুই গুদাম মালিকসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।

কাশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলজার হোসেন মণ্ডল জানান, আমরা যথাসময়ে চাল বিতরণ করেছি। কেউ যদি সেই চাল বিক্রি করে দেয় সেটা কীভাবে বুঝব।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ভিজিএফের চাল বিক্রির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের জন্য বিজিবিকে বলা হয়েছে।









Leave a reply