আশাশুনিতে নদীর বাঁধ ভেঙে ৫ গ্রাম প্লাবিত

|

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে পাঁচটি গ্রাম। ভেসে গেছে অসংখ্য মাছের ঘের, ধসে পড়েছে বহু কাঁচা ঘর-বাড়ি।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুন) দুপুরে উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের বিছট গ্রামের স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাহেব আলী মোল্লার বাড়ি ও বিছট জামে মসজিদ পয়েন্টে বেড়ি বাঁধ ভেঙে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, দুপুরে জোয়ারের চাপে হঠাৎ বিছট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পয়েন্টে বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে পানি ঢুকতে শুরু করে। এর পরপরই সাহেব আলী মোল্লার বাড়ি ও বিছট জামে মসজিদ পয়েন্টে বেড়ি বাঁধও ভেঙে যায়। এতে ইউনিয়নের বল্লবপুর, আনুলিয়া, বিছট, ঘরালি, নয়াখালি গ্রামসহ আশপাশের এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ভেসে গেছে এসব গ্রামের অসংখ্য মাছের ঘের। বিছট জামে মসজিদ বর্তমানে নদীর মধ্যে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় আনুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন যমুনা নিউজকে জানান, খোলপেটুয়ার বেড়িবাঁধ ভেঙে ছয় গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এখনো হু হু করে লোকালয়ে পানি ঢুকছে। দু’দিন পরেই ঈদ কি হবে বলতে পারিনা। তিনি অভিযোগ করে বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বারবার বলা সত্ত্বেও তারা জরাজীর্ণ বেড়িবাঁধ সংস্কারে কোন উদ্যোগ নেয় না। এখন মরতে হবে আমাদের। তিনি বলেন, জোয়ার নেমে গেলে এলাকাবাসীকে নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বাঁধ সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।

এ ব্যাপারে আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাফফারা তাসনীন যমুনা নিউজকে জানান, সংশ্লিষ্টদের দ্রুত রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। বাঁধ সংস্কারে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসও মশিউল আবেদীন জানান, ভাঙনকবলিত এলাকা সংস্কারে রিং বাঁধ দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। জোয়ারের জন্য একটু সমস্যা হচ্ছে। আশা করি দ্রুত কাজ শেষ হয়ে যাবে।









Leave a reply