শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে রাজধানী ফেরা মানুষের প্রচণ্ড চাপ

|

প্রদ্যুৎ কুমার সরকার
আজ বেলা বাড়ার সাথে সাথে কাঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে কর্মস্থলমুখী যাত্রী ও যানবাহনের ঢল নেমেছে। বিকেলে তা বেড়েছে কয়েকগুন। লঞ্চের পাশাপাশি স্পীডবোট-ফেরি করে নদী পেরুচ্ছেন যাত্রীরা। যাত্রীদের থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগও  উঠেছে।

এদিকে যাত্রী চাপ সামাল দিতে শিমুলিয়া ঘাট থেকে যাত্রী ও যানবাহন শূন্য ফেরি, লঞ্চ, স্পীডবোট এনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করছে প্রশাসন। সকালের যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপে এক লঞ্চ যাত্রী পন্টুন থেকে পানিতে পড়ে গেলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে।

বিআইডব্লিউটিসিসহ একাধিক সূত্র জানায়, শুক্রবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে কাঁঠালবাড়ি ঘাট হয়ে রাজধানী ফেরা যাত্রীদের ঢল নামে। লঞ্চ, স্পীডবোট ও ফেরিতে আজ কানায় কানায় পূর্ণ যাত্রীতে।  অন্যান্য দিন ফেরিতে যানবাহন সংকট থাকলেও আজকে সকাল থেকেই যানবাহনের দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে ঘাটে।

দক্ষিণাঞ্চল থেকে ছেড়ে আসা যানবাহনের সাথে সাথে এ রুটের ফেরি, লঞ্চ, স্পীডবোটেও বাড়তি ভাড়ার অভিযোগ রয়েছে। লঞ্চগুলোতে ছিলো অতিরিক্ত বোঝাই করা যাত্রী । যাত্রী চাপ বেশি থাকায় ফেরিতে পর্যাপ্ত যানবাহন উঠতে পারছে না।

যাত্রীদের নিরাপত্তায় ও ওভারলোড ঠেকাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আহমেদের নেতৃত্বে বিআইডব্লিউটিএ পুলিশ, বিআইডব্লিউটিএ, ফায়ার সার্ভিস, আনসার যৌথভাবে কাজ করছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আহমেদ বলেন, আজ সকাল থেকে যাত্রীদের ঢল নেমেছে। বাধ্য হয়ে আমরা শিমুলিয়া থেকে খালি ফেরি, লঞ্চ ও স্পীডবোট আনছি। ফেরিতেও যাত্রীদের অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। নৌযান সংশ্লিষ্টরা আমাদের সহায়তা করছে।

এদিকে  সকাল থেকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে যাত্রী চাপ আছে। পারাপারের অপেক্ষায় অনেক যানবাহন।









Leave a reply