দেশমের বুদ্ধিতে নিষ্ক্রিয় মেসি!

|

ফ্রান্সের বিপক্ষে ৪-৩ গোল হেরে বিশ্বকাপ অভিযাত্রা শেষ হয়ে গেছে আর্জেন্টিনার। অথচ মাচেরানোর ভুলে পেনাল্টি পেয়ে ফ্রান্স এগিয়ে যাওয়ার পরেও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল আলবিসেলেস্তেরা। বক্সের বাহির থেকে ডি মারিয়ার জোরালো শটে গোলে সমতা ফেরায় তারা। বিরতির পর মেসির শট মারাকাদোর পায়ে লেগে ফ্রান্সের পোস্টে ঢুকে লিড এনে দেয় আর্জেন্টিনাকে। কিন্তু এরপরই দুঃস্বপ্নের শুরু- রক্ষণের ভুল ও এমবাপ্পের গতির কাছে পরাস্ত হয় আলবিসেলেস্তেরা। বিপরীতে আর্জেন্টিনার মূল ভরসা লিওনেল মেসিকে নিষ্ক্রিয়ই দেখা গেছে। কেন এত নিষ্ক্রিয় ছিল মেসি?

মূলত, ফরাসি কোচ দেশমের বুদ্ধিতেই নিষ্ক্রিয় হয়ে যেতে হয়েছিল এ সুপারস্টারকে।
প্রতিপক্ষ কোনো কোচই তো চাইবেন না মেসি নিজের মতো খেলুক। দেশমও তাই চেয়েছিলেন। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচ নিশ্চিত হওয়ার পর থেকে তার প্রায় সব পরিকল্পনা ছিল মেসিকে ঘিরেই। তাছাড়া আর্জেন্টিনার রক্ষণ দুর্বল হওয়ায় সেটি নিয়ে বিশেষ ভাবতে হয়নি তাকে। বিশ্বাস ছিল এমবাপ্পে-গ্রিজম্যানরা ঠিকই গোল আদায় করে নেবেন। বরং মেসিকে ঠেকাতেই পারলেই জয় নিশ্চিত, এমন সহজ সমীকরণই মেলানোর চেষ্টা করেছিলেন দেশম।

রণকৌশলের পুরো সময়টা জুড়েই মেসির কথা ভেবেছেন দেশম। কোথায় মেসিকে থামাতে হবে, কোথায় কিছুটা ছাড় দিলেও চলবে- ফরাসি রক্ষণকে এনিয়ে বারবার অনুশীলনও করিয়েছিলেন। আর টিমের আলোচনার মেসি তো ছিলেনই।

দেশমই জানালেন গল্পটা- আমরা মেসিকে সফলভাবেই আটকে রাখতে পেরেছিলাম। আমাদের মিডফিল্ডারদের পেছনে আর একটু বেশি জায়গা পেলেই সে ভয়ানক হয়ে উঠতো। আমরা তাকে নিষ্ক্রিয় করে রাখতে পেরেছি। কান্তে সব সময় তার পেছনে লেগে ছিল।

জানালেন, মেসি যেন বল না পায় সে ব্যবস্থা করাই ছিল তাদের লক্ষ্য। পাশাপাশি, মেসির পায়ে বল গেলে কী করতে হবে সেটিও ভালো করে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন শিষ্যদের। পরিকল্পনা অনুযায়ী মেসি বল পায়ে পেলে তাকে একজন বাধা দেয়ার কাজ করছিল, আরেকজন ক্রমাগত পেছনে লেগে ছিল। বলাই বাহুল্য, দেশমের শিষ্যরা এ পরিকল্পনা দারুণভাবে বাস্তবায়ন করেছেন।

পাশাপাশি, মিডফিল্ডার হাভিয়ের মাচেরানো ও এভার বানেগার সঙ্গে মেসির বোঝাপড়ার দিকটাও মাথায় রেখেছিলেন দেশম। মেসিকে থামাতে এই দু’জনের জন্যও বিশেষ পরিকল্পনা ছিল দেশমের। মাঠের খেলায় যে সে পরিকল্পনা কাজে লেগেছে সেটি আর না বললেও চলছে।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply