ভুক্তভোগীর দায়িত্ব নেওয়ায় এসিড নিক্ষেপকারীর সাজা মওকুফ

|

আট বছর আগে এক কিশোরীকে এসিড নিক্ষেপে দায়ে তার যাবজ্জীবন কারদণ্ড হয়েছিল। কারাবাসে তারা বোধোদয় ঘটে। ভুক্তভোগীকে বিয়ে করেন তিনি, পাশাপাশি তার প্লাস্টিক সার্জারির জন্য নিজের শরীরের চামড়াও দান করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এমতাবস্থায় তার সাজা পুনর্বিবেচনা করে তাকে মুক্তি দিয়েছেন মুম্বাই হাইকোর্ট।

এসিড নিক্ষেপকারীর নাম অনিল পাতিল। তিনি বলেন, আমি আপোষ করেছি এবং শান্তিতে সংসার করার জন্য এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তার প্লাস্টিক সার্জারির খরচও আমি বহন করবো।

গত ২৭ জুন বিচারপতি ভুষণ গাভাই ও সারাং কতোয়াল এ রায় দেন। অনিল প্রেমের প্রস্তাবে প্রত্যাখ্যাত হয়েই এ ঘটনা ঘটায় বলে আদালতে জানিয়েছেন।

এর আগে, ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে ভারতীয় দন্ডবিধি ধারা ৩২৬ অনুযায়ী মুম্বাই কোর্ট অনিল পাতিলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। একই সাথে তাকে ২৫ হাজার রুপি প্রদান করতে বলা হয়।

২০১০ সাল থেকে অভিযুক্ত অনিল ও এসিড হামলার শিকার কিশোরী একে অপরের পরিচিত ছিলেন। কলেজ পড়ুয়া কিশোরীকে অনিল প্রেমের প্রস্তাব দিলে সে না করে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে এসিড নিক্ষেপ করে অনিল।

যমুনা অনলাইন: কেআর/টিএফ









Leave a reply