এটি কি যৌন নির্যাতন নয়!

|

মাত্র ক’দিন আগে রাশিয়া বিশ্বকাপ কভার করতে যাওয়া জার্মান এক নারী সাংবাদিককে লাইভ রিপোর্ট করার সময় যৌন নির্যাতন করার ঘটনায় তোলপাড় হয়েছিল। এক পুরুষ ভক্ত এসে তাকে জড়িয়ে ধরে চুমু দিতে থাকেন। তার কয়েক দিনের মধ্যে ঘটলো নতুন ঘটনা। এবার কোরিয়ান এক পুরুষ সাংবাদিক যখন লাইভে দাঁড়ালেন তখন এক নারী ভক্ত এসে তাকে জড়িয়ে ধরে পরপর দুইবার চুমু খেলেন।

সামজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, দক্ষিণ কোরিয়ার টেলিভিশন চ্যানেল এমবিএনের সাংবাদিক জিওন জিওয়াং রিওল গত ২৮ জুন মাইক্রোফোন হাতে সরাসরি সম্প্রচারে থাকা অবস্থায় দুই রাশিয়ান তরুণী তাঁর গালে চুমু খান। এ সময় রিওল বিষয়টি হেসে উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও নিজের বিব্রত ভাব এড়াতে পারেননি।

বিবিসি জানাচ্ছে, এ ঘটনাটি চীনের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ওয়েবোতে সমালোচনার ঝড় তুলেছে। প্রশ্ন উঠছে, আগের ঘটনায় নারী সাংবাদিককে চুমু দেয়ায় ‘যৌন হয়রানি’র অভিযোগ উঠলেও বর্তমান ঘটনাটি নিয়ে কেন সবাই সরব নয়? এটি কি যৌন নির্যাতন নয়?

নানাজন নানা মত দিচ্ছেন। একজন ওয়েবো ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘আগের ঘটনার প্রতিক্রিয়ার তুলনায় এর প্রতিক্রিয়া সম্পূর্ণ উল্টো।’ আরেকজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘কেন এটিকে নিপীড়ন বলা হবে না?’ তাঁর এ মন্তব্যে শত শত লাইক পড়ে।

একজন ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, ‘চুমুটি যদি কোনো সুন্দরী দেন, তাহলে সেটা আর হেনস্তা হয় না!’

আরেকজন পুরুষ ও নারীর সমতার বিষয়টি উল্লেখ করে লিখেছেন, দুটি ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় এটা দেখা যাচ্ছে যে সমাজে লিঙ্গবৈষম্য বিদ্যমান।









Leave a reply