বৃদ্ধা শাশুড়িকে হাত বেঁধে নির্যাতন

|

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় বৃদ্ধা শাশুড়িকে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ ওই বৃদ্ধার ছেলে ও বউমাকে আটক করেছে। শুক্রবার (৬ জুলাই) দুপুরে উপজেলার বড়কুপট গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, বড়কুপট গ্রামের মৃত তৈলক্ষ্য মন্ডলের ছেলে প্রভাষ মণ্ডল ও প্রভাষ মণ্ডলের স্ত্রী আশা রানী।

স্থানীয়রা জানান, বড়কুপট গ্রামের মৃত তৈলক্ষ্য মণ্ডলের স্ত্রী আশি বছরের বৃদ্ধা ফুলবাসীকে পায়খানা-প্রসাব করার জন্য প্রতিনিয়ত বেঁধে নির্যাতন করেন তার বউমা আশা রানী। একই সাথে তাকে ঠিকমতো খাবারও দেওয়া হয় না।

সম্প্রতি স্থানীয় এক যুবক নির্যাতনের বিষয়টি দেখতে পেয়ে স্থানীয় পুলিশের দৃষ্টি আকর্ষণ করে ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট করে ‘মা জনম দুঃখীনি মা, গর্ভধারীণী মা, যে মা ১০ মাস ১০দিন গর্ভধারণ করে স্ব-যত্নে রেখেছিলেন। সেই মা যদি এমন বউয়ের পাল্লায় পড়েন? কিন্তু সন্তানের চোখ কি অন্ধ?’ লিখে স্ট্যাটাস দেন।

বিষয়টি পুলিশের দৃষ্টিগোচর হলে দুপুরে পুলিশ গিয়ে ওই বৃদ্ধাকে বাঁধা অবস্থায় পায় এবং ছেলে-বউমাকে আটক করে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে শ্যামনগর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শংকর জানান, ওই বৃদ্ধার ছেলে-বউমাকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

তিনি জানান, বৃদ্ধা ফুলবাসী বর্তমানে তার বাড়িতেই ভাল আছেন। তার খাবারের ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে।









Leave a reply