জনসন অ্যান্ড জনসনকে ৪৭০ কোটি ডলার জরিমানা

|

জনসন অ্যান্ড জনসনের ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করে জরায়ু ক্যান্সার হওয়ার অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার বিচার শেষে কোম্পানিটিকে ৪৭০ কোটি ডলার (প্রায় ৩৯ হাজার কোটি টাকা) জরিমানা করেছে দেশটির আদালত।

আট ঘন্টা ধরে বিচারকার্য চলার পর যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি রাজ্যের আদালত এ রায় দেন। এর আগে পাউডার ব্যবহারে জরায়ু ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগ করেন ২২ নারী। এর মধ্যে ৫৫ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ হিসেবে ও ৪১০ কোটি ডলার শাস্তিমূলক জরিমানা হিসেবে ধরা হয়েছে, যার পুরোটাই অভিযোগকারী ২২ নারীকে দিতে হবে। এমনটি জানিয়েছে সিএনএন।

৬ সপ্তাহের এই বিচার চলার সময় ওই নারীরা ও তাদের পরিবার বিচারককে বলেছে, কয়েক দশক ধরে কোম্পানিটির তৈরি বেবি পাউডার ও অন্যান্য পাউডার ব্যবহার করার পর তারা জরায়ু ক্যান্সারে আক্রান্ত হন।

এরইমধ্যে জরায়ু ক্যানসার আক্রান্ত হয়ে অভিযোগকারী ২২ নারীর মধ্যে ছয়জন মারা গেছেন। তাদের আইনজীবীরা অভিযোগ করেন, ট্যালকম পণ্য ‘অ্যাজবেস্টজে’ দূষিত বলে জনসন অ্যান্ড জনসন ১৯৭০-এর দশক থেকে জানলেও ঝুঁকির বিষয়ে ভোক্তাদের সতর্ক করেনি।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জনসন অ্যান্ড জনসন বলেছে, এ রায়ে তারা গভীরভাবে হতাশ। কারণ, অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে বহুবার পরীক্ষার পর এটা প্রমাণিত যে তাদের পণ্যে কোনো দূষণ নেই। তারা আপিলের পরিকল্পনা নিচ্ছে বলেও জানান।

এই কোম্পানির বিরুদ্ধে এটাই প্রথম অভিযোগ নয় এর আগেও অনেক অভিযোগ এসেছে বলেও জানায় সিএনএন। দেশব্যাপী একশটির মতো অভিযোগ (কেস) এ কোম্পানির বিরুদ্ধে বিভিন্ন আদালতে চলমান রয়েছে।

তবে এর আগে একই অভিযোগে করা মামলাগুলোতে ক্ষতিপূরণের যেসব রায় দেয়া হয়েছিল তার সবগুলোর বিরুদ্ধে উচ্চতর আদালতে গিয়ে জয়ী হয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

এর আগে সর্বশেষ একই অভিযোগের বিচারে কোম্পানিটিকে ৪১ কোটি ৭০ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল ক্যালিফোর্নিয়ার জুরিরা। পরে সেই রায় উচ্চ আদালতে বাতিল হয়ে যায়।









Leave a reply