লক্করঝক্কর ফেরিতে যাত্রী ভোগান্তি

|

গোপালগঞ্জের মধুমতি নদীতে লক্করঝক্কর ফেরি দিয়ে চলছে যাত্রী আর যানবাহন পারাপার। ফেরি চালু রাখতে পাম্প দিয়ে পানি সেচের ব্যবস্থা করা হয়েছে। জোড়াতালির এই সেবায় ঝুঁকি যেমন বেড়েছে, তেমনি বাড়ছে যাত্রী ভোগান্তি।

যশোর, খুলনাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাথে যোগাযোগের জনপ্রিয় রুট গোপালগঞ্জের এই কালনা ফেরিঘাট। রাজধানীর সাথে কম দূরত্বে যোগাযোগের জন্য যানবাহনের চাপ থাকে এ পথে। কিন্তু জরাজীর্ণ ফেরি দিয়ে দীর্ঘদিন পারাপার চলছে মধুমতি নদীতে।

তলদেশসহ ফেরির বিভিন্ন অংশে অসংখ্য ফাটল। তাই পারাপারের পর সেচ দিয়ে পানি বের করতে হচ্ছে ফেরি থেকে। ততক্ষণে দুই পাড়ে জমে যাচ্ছে যানবাহনের সারি। যাত্রীবাহী বাস আর কোরবানী পশুর ট্রাক চলাচল বেড়ে যাওয়ায় ভোগন্তি চরমে।

২০০৪ সালে ফেরিটি কালনা ঘাটে যুক্ত হয়। তারপর থেকে প্রয়োজনীয় সংস্কার হয়নি। আরেকটি ফেরি থাকলেও দীর্ঘদিন বিকল। তাই অতিরিক্ত ভার নিয়েই চলতে হচ্ছে বর্তমান ফেরিটিকে।

একমাত্র ফেরিটির সংস্কারে সড়ক ও জনপথের প্রকৌশল বিভাগ কয়েক দফা আশ্বাস দিলেও কাজ হচ্ছে না।

এর আগে, ২০১৬ সালে কালনা ঘাটের একটি ফেরি মধুমতি নদীতে ডুবে যায়।

যমুনা অনলাইন:এফএম









Leave a reply