অভিনেত্রী পায়েলের আত্মহত্যা, কেন?

|

অবসাদই কি কেড়ে নিল আরেক অভিনেতার জীবন? অভিনেত্রীর পায়েল চক্রবর্তীর মৃত্যুর পর আবারও উঠল এই প্রশ্নটা। শিলিগুড়ির একটি হোটেল থেকে উদ্ধার হল তাঁর মৃতদেহ। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার হিলকার্ট রোডের একটি হোটেলে যান।

হোটেল কর্মীদের জানান, পরের দিন গ্যাংটক যাবেন। কিন্তু পরের দিন বেলা গড়িয়ে গেলেও ঘর থেকে বেরোতে দেখা যায়নি তাঁকে। তখন হোটেল থেকে থানায় ফোন করা হয়। পুলিশ এসে দরজা ভাঙে। তখনই তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

ছোট পর্দার চোখের তারা তুই, রূপায়ণ- এই দুই ধারাবাহিকে তাঁর অভিনয় দর্শক মহলে প্রশংসা কুড়িয়েছিল। এছাড়া বড় পর্দায় দেবের জনপ্রিয় ছবি ‘ককপিট’-এও তাঁকে দেখা গিয়েছিল। মুক্তি পেতে চলা বাংলা ছবি ‘কেলো’-তেও মুখ দেখিয়েছেন তিনি। নৈহাটির মেয়ে পায়েল গত তিন বছর ধরে চুটিয়ে অভিনয় করছেন। আর সেটাই পারিবারিক অশান্তির কারণ হয়ে ওঠে। এমনকী বিবাহ বিচ্ছেদও হয় তাঁর।

তারপর থেকে একাই থাকতেন পায়েল। এর আগেও এমন ঘটনার সাক্ষী থেকেছে টলিপাড়া। রিল এবং রিয়েল গুলিয়ে ফেলেছেন অনেকেই। পর্দা তাঁদের খ্যাতি এনে দিয়েছিল কিন্তু বাস্তবে সবদিক থেকে একা হয়ে গিয়েই এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন বহু উঠতি অভিনেতা।

এদিকে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করে দুটি জিনিস জানতে পেরেছেন তদন্তকারীরা। একটি হল শ্যুটিংয়ের কাজ বাকি রেখেই শিলিগুড়ি গিয়েছিলেন তিনি। অন্যটি আরও চাঞ্চল্যকর। পুলিশ জেনেছে সোমবার সারাদিন তাঁর ফোন বন্ধ ছিল। কিন্তু হোটেল কর্মীরা জানিয়েছেন রাতে তাঁকে ফোনে কথা বলতে শোনা যায়। তিনি কার সঙ্গে ফোনে কথা বলছিলেন সেটাই জানতে চান তদন্তকারীরা।

সূত্র: এনডিটিভি









Leave a reply