উদ্বোধনের অপেক্ষায় গোপালগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন

|

স্টাফ রিপোর্টার,গোপালগঞ্জ
গোপালগঞ্জে সাড়ে ১২শ” কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৪৪ কিলোমিটার রেলওয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়। এ মাসের যে কোন দিন প্রধানমন্ত্রী এ রেললাইনের উদ্বোধন করবেন। কখন রেল চলাচল শুরু হবে এ প্রতিক্ষায় এখন গোপালগঞ্জের মানুষ।

গোপালগঞ্জে রেল লাইন হবে আর রেলে চড়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করবে এ যেন জেলাবাসীর কল্পনারও অতীত ছিল। কিন্তু সেটি সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য। ইতোমধ্যে গোপালগঞ্জে সাড়ে ১২শ” কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৪৪ কিলোমিটার রেলওয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

দু’টি টিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স ও তমা গ্রুপ গত ২০১৫ সালের নভেম্বরে কাজ শুরু করে।ইতোমধ্যে তারা তাদের কাজ শেষ করেছেন। এখন শুধুমাত্র কোথাও কোন ত্রুটি রয়েছে কিনা তা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখছেন। গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী থেকে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চর বয়রা পর্যন্ত ৪৪ কিলোমিটার রেল লাইন সম্প্রসারন করা হয়েছে।

নিম্নাঞ্চল হিসাবে খ্যাত গোপালগঞ্জ জেলা সদরে রেল লাইন নির্র্মান হওয়ায় গোপালগঞ্জ বাসী খুবই আনন্দিত। তারা এখন অল্প খরচে এবং নিরাপদ ভ্রমণ করতে পারবেন, যেতে পারবেন দেশের বিভিন্ন স্থানে।

নির্মান প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স কোম্পানীর প্রকোশলী এখলাসুর রহমান ও তমা গ্রুপের প্রজেক্ট ম্যানেজার এস এম নজরুল জানান, আমাদের কাজ এক কথায় শেষ, অর্থাৎ শেষ মুহূর্তের ডেকোরেশনের কাজ চলছে। ৪৪ কিলোমিটার রেল লাইন, একটি রেল ব্রীজ, ৪৩ টি কার্লভাট, এবং ৬টি রেল স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পের জন্য সর্বমোট ১২ শ’৫৮ কোটি টাকা খরচ হয়েছে।

গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান সরকার জানান, গোপালগঞ্জ বাসীর দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন পূরণের সাথে সাথে এ অঞ্চলের মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন হবে এ প্রকল্পের মাধ্যমে।

এ মাসের শেষ দিকে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই রেল লাইনের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে গোপালগঞ্জ জেলা বাসির স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। আর এ জন্য মুখিয়ে আছেন জেলাবাসী।









Leave a reply