জাতীয় ঐক্যের ঘোষণা দিলেন ড. কামাল

|

সৎ, যোগ্য নেতৃত্বে সরকার গঠনের লক্ষ্যে আইন প্রণয়ন এবং শাসনকার্য পরিচালনার স্পষ্ট অঙ্গীকার নিয়ে জাতীয় ঐক্যের ঘোষণা দিয়েছেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। ঐক্য প্রক্রিয়ায় আরও রয়েছে বিকল্পধারা, জেএসডি এবং নাগরিক ঐক্য। ঘোষণাকালে জেএসডির আ স ম আবদুর রব ও নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না উপস্থিত থাকলে ছিলেন না বিকল্প ধারার কোনো নেতা। যদিও বলা হয়েছে এ প্রক্রিয়ার সাথে রয়েছে বিকল্পধারা।

শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেন বলেছেন, গণতন্ত্রকে কার্যকর করতে দেশের ১৬ কোটি মানুষ ঐক্যবদ্ধ আছে। দেশে কোনো অরাজকতা হলে তারা তা রুখে দাঁড়াবে। বিজয়ের পঞ্চাশ বছর সামনে রেখে দেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সম্ভাবনার কথা শুনিয়েছেন ড. কামাল হোসেন।

দুপুর থেকেই যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতাকর্মীরা জড়ো হন জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে। ড. কামাল হোসেন, আ স ম আব্দুর রব, মাহমুদুর রহমান মান্না, মুক্তিযোদ্ধা ডা. জাফরুল্লাহ, সাবেক ছাত্রনেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাব থেকে শহীদ মিনারের দিকে যাত্রা করে খানিক এগোলেও পরে আবার ফিরে আসেন।

প্রেসক্লাবের দোতলায় গণমাধ্যম কর্মীদের সমানে পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেন মাহমুদুর রহমান মান্না। দাবি জানান, নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকার, লেভেল প্লেইং ফিল্ড তৈরি, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত, রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের মুক্তি, নির্বাচনে সেনা মোতায়েন, ইভিএম বাদ দেয়ার। এছাড়া, ৯ দফা লক্ষ্যের কথাও জানানো হয় সাংবাদিকদের।

সংবাদ সম্মেলন থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কর্মসূচি পালন করতে দেয়া হয়নি এমন অভিযোগ করে এর নিন্দা জানান জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, অসুস্থতার কারণে বিকল্পধারার সভাপতি ডা এ কি এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী কর্মসূচিতে উপস্থিত হতে পারেননি।

এর আগে, শুক্রবার তোপখানায় নাগরিক ঐক্যের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত দিনভর বৈঠকে অভিন্ন এই রূপরেখা চূড়ান্ত করা হয়। এ সময় সব দলের অংশগ্রহণে দেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আদায়ে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার ওপর জোর দেয়া হয়। এ লক্ষ্যে অভিন্ন পাঁচ দফা ছাড়াও নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করলে দেশ পরিচালনায় ৯ দফার আলাদা একটি রূপরেখা তৈরি করেন দুই জোটের নেতারা।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply