আদালতে আসামির গণধর্ষণের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

|

ময়মনসিংহ ব্যুরো:

ময়মনসিংহে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় আটক এক আসামি সোহাগ আদালতে অপরাধ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। তবে এই ঘটনার মূল আসামি সুমন এখনো পলাতক রয়েছে। পুলিশ বলছে, মূল আসামিকে ধরতে অভিযান চলছে।

ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তদন্ত মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান জানান, সোমবার বিকালে ময়মনসিংহ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ৩নং আমলী আদালতের বিচারক বিল্লাল হোসেন আসামির জবানবন্দি গ্রহণ করেন। একই সময়ে নির্যাতনের স্বীকার স্কুল ছাত্রীরও জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়। ঘটনার দিন বিকেলে শিশুটিকে অপহরণের পর প্রায় দশ ঘন্টা পাশবিক নির্যাতন চালায় অন্তত পাঁচজন। এরপর গভীর রাতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে শিশুটিকে ফেলে যায় ধর্ষকরা। গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটি এখন ভর্তি রয়েছে ময়মনসিংহ মেডিকেলে।

এই ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় পলাতক প্রধান আসামি ত্রিশাল উপজেলার বখাটে যুবক সুমন। জানা যায়, সুমনের অত্যাচারে অতিষ্ঠ স্থানীয় স্কুল-কলেজের ছাত্রীরা। বিভিন্ন সময় স্থানীয় প্রশাসনেরও দারস্থ হন অভিভাকরা। তবে বরাবরই মুচলেকা ও ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে যায় সুমন।

এমনই একটি মুচলেকা আসে যমুনা টিভির হাতে। দেখা যায় স্কুল ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করা, প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হলে রাস্তাঘাটে মারধরের কথা স্বীকার করেছে সুমন। অথচ অদৃশ্য কারণে বিচার হয় না তার। তাই শঙ্কিত গণনির্যাতনের শিকার শিশুটির পরিবার।









Leave a reply