শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে ভগ্নিপতি আটক

|

নেত্রকোণা প্রতিনিধি:

নেত্রকোণার কলমাকান্দা উপজেলার কৈলাটি ইউনিয়নের কনুড়া গ্রামের ৫ম শ্রেণীর এক শিশু শিক্ষার্থী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়ে ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে।

এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে একই এলাকায় তারই মেয়ের জামাতা আঃ হোসেনের ছেলে আঃ মোতালিবসহ (৩৫) ৪ জনের নাম উল্লেখ করে আদালতের মাধ্যমে ২৭ সেপ্টেম্বর কলমাকান্দা থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিশুটির বোনের জামাই মোতালিবকে সোমবার রাতে ময়মনসিংহ ভালুকা সীড ষ্টোর এলাকা থেকে স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতায় আটক করে কলমাকান্দা থানা পুলিশ। আসামি মোতালিবকে মঙ্গলবার সকালে নেত্রকোণা জেলা নারী ও শিশু ট্রাইব্যুনাল আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই মো. আঃ রব অভিভাবকের বরাত দিয়ে জানান, ওই শিশু স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। ধর্ষক মোতালিব ওই বাড়ির জামাই হওয়ার সুবাদে নিয়মিত আসা-যাওয়া করত। শিশুটিকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করে।

হঠাৎ করে শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন হলে এ বিষয়টি নজরে আসে পরিবারের লোকজনের। কিছুদিন পূর্বে অভিভাবক শিশুটির শারীরিক অবস্থা পরিবর্তন হওয়ায় তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। বিভিন্ন চেকআপের পর ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ধরা পড়ে। পরে মেয়েকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে সে ঘটনা বিস্তারিত খুলে বলে।

কলমাকান্দা থানার ওসি মো. মাজহারুল করিম জানান, শিশুর বাবা বাদী হয়ে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করেছেন। ধর্ষককে আটক করে মঙ্গলবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে। শিশুটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। বাকি অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।









Leave a reply