তিতলির আঘাতে ভারতে প্রাণ গেছে ৯ জনের

|

ভারতের ওড়িষা ও অন্ধ্র প্রদেশে ঘূর্ণিঝড় তিতলির তাণ্ডবে প্রাণ গেছে অন্তত ৯ জনের। স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল নাগাদ দুর্বল হয়ে পড়ে ঝড়টি।

দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, বর্তমানে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৫৫ কিলোমিটার বেগে ওড়িষা উপকূল অতিক্রম করছে ঝড়টি। এর প্রভাবে, ওড়িষা ও অন্ধ্র প্রদেশে এখনও হচ্ছে বৃষ্টিপাত। ঝড়ের তাণ্ডবে উপকূলীয় এলাকায় উপড়ে গেছে অসংখ্য গাছপালা। ভেঙে পড়েছে অনেক ঘরবাড়ি। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে কয়েক লাখ মানুষ। বেশ কিছু জেলায় ভেঙে পড়েছে সড়ক আর রেল যোগাযোগও। প্রাণহানি এড়াতে, বুধবারই নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয় ওড়িষার কমপক্ষে তিন লাখ বাসিন্দাকে। সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় তিতলি’র প্রভাবে আজও রাজধানীসহ খুলনা, চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের অনেক জায়গায় গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। এ কারণে ব্যাহত হচ্ছে জীবনযাত্রা।

ঢাকায় সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত তিন ঘন্টায় ২২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। সারাদিন গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। দেশের সমুদ্র বন্দরগুলোতে বহাল রয়েছে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত। নৌবন্দরগুলোকে দুই নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বর্তমানে ভারতের ওড়িশা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় স্থলচাপ হয়ে অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় তিতলি। এটি আরও উত্তর, উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছে। এর প্রভাবে বঙ্গপোসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালা সৃষ্ট হওয়ায় আশেপাশের এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি ও দমকা বয়ে যেতে পারে। জেলে ট্রলারগুলোকে সতর্ক থেকে মাছ ধরতে বলা হয়েছে।









Leave a reply