গণতন্ত্রকে মুক্ত করাই এবারের দুর্গাপূজা উৎসবের প্রার্থনা: মির্জা ফখরুল

|

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, অন্যায় অত্যাচার ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে দেবী দূর্গা যেভাবে অসুর কে বধ করেছিলেন, ঠিক তেমনি করে বাংলাদেশে যেন অত্যাচার, নির্যাতন বন্ধ হয় এবং সত্যের জয় হয়। গণতন্ত্রকে মুক্ত করা, অন্যায়, অত্যাচার ও নিপীড়ন থেকে মুক্ত হওয়া এটাই এবারের দুর্গাপূজা উৎসবের প্রার্থনা।

তিনি বুধবার দুপুরে তার নিজ জেলা ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বিভিন্ন পুজা মন্ডপ পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন। পরে তিনি ঠাকুরগাঁওয়ের কালিবাড়িস্থ তার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন। এসময় বিএনপি’র জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফকরুল আরো বলেন, দেশে গণতান্ত্রিক স্পেচ সংকুচিত হয়ে গেছে। তাই গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে, সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে নির্বাচন কমিশনকে পুর্নগঠিত করতে হবে এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে হবে। নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা চলবেনা এবং নির্বাচনের সময় সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। আর এসব দাবী নিয়ে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র কাঠামো তৈরিতে বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করার জন্য এবং এদেশের মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা ও সমাজ ব্যবস্থা প্রবর্তন করার জন্য বিভিন্ন দলের সমন্বয়ে জাতীয় ঐক্য গঠন করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্রকে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য বিএনপি আন্দোলনে ছিলো, এখনো রয়েছে এবং কাজ করে যাচ্ছে। তবে খলেদা জিয়ার মুক্তি না হলে নির্বাচনের বিষয়ে চিন্তা করবে বিএনপি। যত ঝড় আসুক না কেন, তার মোকালো করে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তি করেই আগামী জাতীয় নির্বাচনে যাবে বিএনপি। বর্তমানে দেশে যে চলমান রাজনৈতিক ও নির্বাচনী সংকট রয়েছে তা দূর করার দায়িত্ব সরকারের। তাই দেশের অন্যান্য দলগুলোকে সমান সন্মান দিয়ে তাদের যৌক্তিক দাবিগুলো মেনে নিতে হবে এছাড়া সমস্যা সমাধান হবার নয়।









Leave a reply