দিল্লিতে ৮ বছরের মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা

|

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে এক শিশু বয়সী মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করেছে স্থানীয় কয়েকজন; যাদের মধ্যে কয়েকজন কিশোরও ছিল। এনডিটিভি জানিয়েছে, দক্ষিণ দিল্লির মালভিয়া নগর এলাকার দারুল উলুম ফরিদিয়া মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে এনডিটিভি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার মাদ্রাসার কয়েকজন শিশু-কিশোর ছাত্র মিলে পাশের মাঠে খেলাধুলা করছিল। তখন স্থানীয় কয়েকজন কিশোর এসে তাদের ওপর হামলা করে।

সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, হামলার শিকার হয়ে ছাত্ররা মাদ্রাসার ভেতরে দৌড়ে চলে যায়। তবে আসিম নামে ৮ বছরের এক ছেলে হামলাকারীদের হাতে আটকা পড়লে তাকে ধরে মোটরসাইকেলের সাথে তার মাথা ধাক্কা দেয়া হয়। এতে অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যায় আসিম। তখন হামলাকারী কিশোররা পালিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয়রা তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

মাদ্রাসার শিক্ষক আলী জোহর জানিয়েছেন, আসিম হিফজ বিভাগে পড়তো এবং খুবই মেধাবী ছাত্র ছিল। এই শিক্ষক আরও জানান, তাদের মাদ্রাসা এবং একটি মসজিদ মিলে যে জায়গাটি রয়েছে সেটি স্থানীয় কিছু লোক দখলের জন্য বহুদিন ধরে পায়তারা করছে। মাঝে মাঝে কিছু যুবক মাদ্রাসার উঠানে এসে জুয়া খেলা জুড়ে দেয়, কখনো মদের বোতল ছুঁড়ে মারে। এ ধরনের ঘটনা প্রায়ই ঘটছে।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের ধারণা, কোনো কুচক্রী মহল কিশোরদেরকে উস্কিয়ে দিয়ে করে মাদ্রাসাকে কেন্দ্র করে বিবাদ তৈরি করতে চায়।

এদিকে নিহতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, এবং ৫ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি পুলিশ ও দিল্লির গভর্নরকে ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করার অনুরোধ করেছেন।

হামলায় জড়িত ৪ কিশোরকে আটক করে কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে।









Leave a reply